fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ঈদের নামাজ বাড়িতে বসেই পড়ুন, অনুরোধ মুখ্যমন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রাত পোহালেই দেশজুড়ে পালিত হবে খুশির ঈদ। বাংলায় তা পালিত হবে সোমবার। প্রতি বছর বাংলার নানা প্রান্তে ঈদের নামাজ আয়োজিত হয় বেশ বড় করেই। কলকাতার রেড রোডে যেমন জমায়েত হয় তেমনি মালদহের কালিয়াচকে আয়োজিত হয় রাজ্যের সব থেকে বড় নামাজ অনুষ্ঠানের। তাতে দেড় থেকে দুই লক্ষ মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও ঈদের বড় জমায়েত হয় উত্তর দিনাজপুর, মুর্শিদাবাদ ও বীরভূম জেলাতেও। কিন্তু এদিন করোনার আবহে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষকে অনুরোধ করলেন এবারে যেন তাঁরা ঈদের নামাজ বাড়িতে বসেই পড়েন।

মারণ ভাইরাস করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে জনতা কার্ফু দিয়ে সেই মার্চ মাস থেকে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে লকডাউন পর্ব। ইতিমধ্যেই তা চতুর্থ পর্বে পা রেখেছে। তার মধ্যেই পড়েছে ঈদ-উল-ফিতর। এতদিন  মুসলিমদের অনুরোধ করা হচ্ছিল মসজিদে যেন তাঁরা ভিড় না করেন নামাজের জন্য। প্রথম দিকে সেই কথা অনেকে না শুনলেও সময় যত এগিয়েছে এবং এই মারণ ভাইরাস যত তার খেল দেখিয়েছে ততই রাজ্য জুড়ে মসজিদে মসজিদে ভিড় কমেছে নামাজ পড়ার জন্য।

আরও পড়ুন: ‘৩ দিন আগেই সেনা নামানো যেত’ রাজ্য সরকারকে ফের খোঁচা রাজ্যপালের

প্রতি বছর কলকাতার রেড রোডের ঈদের জমায়েতে স্বপার্ষদ অংশগ্রহণ করেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্ষমতায় আসার আগেও তিনি এই জমায়েতে অংশ নিতেই এবং তখন থেকেই প্রতিবছর এই জমায়েত থেকে রাজ্যের সংখ্যালঘু সমাজকে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিতেন। এবারে অনেকেই তাকিয়ে ছিলেন সেই অনুষ্ঠানের জন্য। এনআরসি, সিএএ ও দিল্লির দাঙ্গার প্রেক্ষাপটে বাংলার অগ্নিকন্যা কী বার্তা দেন তা শোনার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিল রাজ্যের সংখ্যালঘু সমাজ। কিন্তু এদিনের বার্তাতেই পরিষ্কার হয়ে গেল যে এবছর রেড রোডে নামাজের কোনও আয়োজন করা হচ্ছে না। এ প্রসঙ্গে এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানান,‘সামনেই ইদ। এদিন আমি নিজে সব জায়গায় যাই। এবার তা পারলাম না। কেন্দ্রীয় সরকার বলেছে যে কোনও ধরনের ধর্মীয় জমায়েত নিষিদ্ধ। তাই আমার সংখ্যালঘু ভাইবোনেদের কাছে আমি হাতজোড় করে অনুরোধ করছি, রমজান বাড়িতে বসে করেছেন। ঈদের নামাজটাও বাড়িতে বসেই করুন।

Related Articles

Back to top button
Close