fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিশ্বভারতী ও শান্তিনিকেতনে কোনও পাঁচিল চাই না: মুখ্যমন্ত্রী

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বভারতী ও শান্তিনিকেতনে পাঁচিল তৈরি করাকে ঘিরে বিতর্কের শেষ নেই। সোমবার সকালে স্থানীয় মানুষ জমায়েত হয়ে পাঁচিল ভেঙে দেন। পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এরই মাঝে এ বিষয়ে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অবস্থান নিতে বিন্দুমাত্র দেরি করলেন না তিনি। নবান্নের সাংবাদিক সম্মেলন থেকেই তিনি জানান, ভুবনডাঙার মাঠে পাঁচিল পড়ুক তা তিনি চান না।

রাজ্যপাল তাঁকে বিশ্বভারতীর পরিস্থিতি নিয়ে ফোন করেছিলেন। সেখানে তিনি নিজের অবস্থান পরিস্কার করে দিয়েছেন রাজ্যপালের কাছে। একই সঙ্গে জানিয়েছেন, উপচার্য না ডাকলে বিশ্বভারতীতে পুলিশ ঢুকবে না আর জেলাশাসককে তিনি নির্দেশ দিয়েছেন দ্রুত বৈঠক ডেকে পরিস্থিতি শান্ত করার।

আরও পড়ুন: বিশ্বভারতীর আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি ভয়াবহ, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে শান্তি ফেরানোর চেষ্টা করছি; টুইট রাজ্যপালের

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী প্রথমে বিশ্বভারতী নিয়ে কোনও প্রশ্নের জবাব দিতে চাননি। পরে নিজেই মতবদলে জানান যে বিষয়টি নিয়ে রাজ্যপাল নিজেই যোগাযোগ করেছিলেন তাঁর সাথে। দুইজনের মধ্যেই বিষয়টি নিয়ে কথাও হয়েছে। সেই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘বিশ্বভারতী কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়। আমি কোনও মন্তব্য করব না। তবে, রাজ্যপাল আমাকে ফোন করার পর আমি খোঁজ নিয়ে যা জেনেছি, ওখানে একটা নির্মাণকাজ চলছিল। সেখানে সেই কাজ চলার সময় কিছু বহিরাগত উপস্থিত ছিলেন। বহিরাগত মানে যারা ওই নির্মাণ কাজ চালাতে এসেছিলেন। ছাত্ররা তার প্রতিবাদ জানায়। জেলাশসককে বলেছি, উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনে পড়ুয়া ও স্থানীয়দের নিয়ে বৈঠক করুন। আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করতে হবে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বিশ্বভারতী গড়ে তুলেছিলেন প্রাকৃতিক পরিবেশে শিক্ষাদানের জন্য। আমি একটাই কথা বলব, বাংলার ঐতিহ্য যাতে নষ্ট না হয়, বিশ্বভারতীর গৌরব এবং ঐতিহ্য যাতে অটুট থাকে, তা আমাদের সকলের দেখা উচিত।’

Related Articles

Back to top button
Close