fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সাংসদকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায়, দোষীদের শাস্তির দাবিতে অভিযোগ দায়ের জেলা সাইবার ক্রাইম থানায়

শ্যামল কান্তি বিশ্বাস, কৃষ্ণনগর : রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ জগন্নাথ সরকারকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য সোশ্যাল   মিডিয়ায়। উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এই জঘন্নতম ঘটনায় ব্যথিত সাংসদ জগন্নাথ সরকার। সঠিক তথ্য উদঘাটন করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক কঠিন শাস্তির দাবিতে গতকাল ৩১ শে আগষ্ট কৃষ্ণনগর জেলা সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করেন জগন্নাথ বাবু।

এক সাক্ষাৎকারে জগন্নাথবাবু জানান,গত ৩০ শে আগষ্ট ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট দেখে তিনি হতবাক। তাকে রাজনৈতিক ভাবে ফাঁসানোর জন্য জঘন্যতম চক্রান্ত বলে অভিযোগ করেন জগন্নাথ বাবু। অভিযোগের তীর শাসক তৃণমূলের দিকে। কোনও ভাবেই যখন তাঁর জনপ্রিয়তা কে দমিয়ে রাখা সম্ভবপর হয়ে উঠছে না তখন এই ধরনের জঘন্নতম স্পর্শকাতর বিষয়ে জড়িয়ে তাঁকে জনমানসে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার গভীর চক্রান্ত বলে মনে করেন জগন্নাথ বাবু। জগন্নাথবাবুর জনপ্রিয়তা সহ জনসংযোগ বৃদ্ধিতে শংকিত শাসক তৃণমূল কংগ্রেস,রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে জগন্নাথ বাবুর পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব,ফলে এই ধরনের নোংরা খেলায় মেতেছে শাসক তৃণমূল কংগ্রেস, অভিমত কৃষ্ণগজ্ঞ বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক আশীষ কুমার বিশ্বাসের।জন সমর্থন থেকে ক্রমশঃ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশঙ্কা থেকেই এই জঘন্ন চক্রান্ত বলে অভিমত বিজেপি কৃষাণ মোর্চার রাজ্য সভাপতি মহাদেব সরকারের। সাংসদ জগন্নাথ সরকারের মতো পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এই মুহূর্তে জেলায় দ্বিতীয় টি নেই, অভিমত বিজেপি নদীয়া দক্ষিণের সাংগঠনিক সভাপতি অশোক চক্রবর্তীর।

 আরও পড়ুন: কাফিল খানের গ্রেফতার বেআইনি, স্পষ্ট জানিয়ে দিল এলাহাবাদ হাইকোর্ট

একজন আদর্শ শিক্ষক তথা রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের দক্ষ সংগঠক,তাকে নিয়ে এ হেন ন্যাক্কারজনক চক্রান্ত! তৃণমূল কংগ্রেসের এহেন অভিপ্রায় কোন দিনই সফল হবে না,অভিমত বিজেপি নদীয়া উত্তরের সাংগঠনিক সভাপতি আশুতোষ পালের। তিনি আরো বলেন,কোন অবস্থাতেই যখন পেরে উঠছে না,তখন ব্যক্তিগত চরিত্র হননের জঘন্ন চক্রান্তে নামলেও জেলার মানুষ এদের আর ক্ষমা করবে না,২০২১ এর বিধান সভা নির্বাচনের মধ্যদিয়েই এই দলটি রাজ্য থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।একজন অপরিচিতা মহিলা, সাংসদ কে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য সহ যে এ্যাকাউন্ট থেকে এই মন্তব্য গুলি পোস্ট করা হয়েছে, তাকে সহ যার নামে অর্থাৎ যিনি পোস্ট করেছেন,তাদের বিরুদ্ধে সাংসদ নিজেই গতকাল জেলা সাইবার ক্রাইম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। দোষীদের শনাক্তকরণ সহ দৃষ্টান্তমূলক কড়া শাস্তির দাবিতে সোচ্চার জেলার বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

Related Articles

Back to top button
Close