fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আমপানে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের টাকা চলে যাচ্ছে তৃণমূলের অ্যাকাউন্টে, অভিযোগ বিধায়ক শঙ্কর সিং-এর

অভিষেক আচার্য, কল্যাণী: ঘূর্ণিঝড় আমপানে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সরকারি ক্ষতিপূরণের টাকা এলেও তার অনেকটাই প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের বদলে চলে যাচ্ছে স্থানীয় তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধান কিংবা পঞ্চায়েত সদস্যদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে। এই বিষয়ে শুক্রবার রানাঘাট বিধানসভার বিধায়ক শঙ্কর সিং স্পস্টভাবে জানিয়ে দেন, অভিযুক্তদের কোনো ভাবেই রেয়াত করা হবে না।  তিনি বলেন, এই দুর্নীতি কোনোভাবেই রেয়াত করা হবে না।

শুক্রবার নদীয়ার রানাঘাটে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন বিধায়ক। সেখানে তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কঠোর ভাবে এর বিরোধিতা করেছেন। তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, যে সব পঞ্চায়েত বা পঞ্চায়েত সদস্য এই দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত তাঁদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হবে। মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশ পাওয়ার পর নদীয়া জেলাশাসকের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা হয়েছে। আমপানে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের অর্থ নয়ছয় হলেই তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, এই দুর্নীতির সঙ্গে দলের কেউ জড়িত থাকলে তাঁকেও রেয়াত করা হবে না। দল দুর্নীতিগ্রস্থদের বরদাস্ত করে না।

আরও পড়ুন: পরীক্ষামূলক ভাবে ১১ জুন থেকে সপ্তাহে তিনদিন করে শুরু হতে চলেছে কলকাতা হাইকোর্ট

পাশাপাশি করেন্টাইন সেন্টার নিয়ে নানান অভিযোগ তুলছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। জেলার বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভও দেখিয়েছেন তাঁরা। করেন্টাইন সেন্টারের দুরাবস্থা নিয়ে বিধায়ক শঙ্কর সিং বলেন, আরো বেশি করেন্টাইন সেন্টার করার কথা ভাবা হচ্ছে। ইতিমধ্যে করেন্টাইন সেন্টার নিয়ে মানুষের মধ্যে ভীতি রয়েছে। অন্যদিকে বিজেপি এর বিরুদ্ধে মানুষকে খেপিয়ে তুলছে। উস্কানি দিচ্ছে। কোনো কাজ বিজেপি করছে না। অথচ রানাঘাটের সাংসদ জগন্নাথ সরকারকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছিল জেলা স্বাস্থ্য দফতর। কিন্তু তিনি সেই নির্দেশ না মেনে পাবলিসিটি পাওয়ার জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আইন মানছেন না সংসদ নিজেই। পাশাপাশি এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে তৃণমূলের আগামী কর্মসূচি তুলে ধরেন বিধায়ক।

Related Articles

Back to top button
Close