fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

টোল প্লাজায় টাকা নিয়ে কর্মী নিয়োগের অভিযোগ উঠল তৃণমূল চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিনিধি ( ঝাড়গ্রাম): টোল প্লাজায় টাকা নিয়ে কর্মী নিয়োগের অভিযোগ উঠল খোদ ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগে তুলে সাঁকরাইল ব্লকের বিভিন্ন যায়গায় লিফলেট পড়ল। লিফলেটে টাকা নেওয়ার অভিযোগ করা হলেও সেই লিফলেটে কোনও সংগঠন বা কোউ ব্যক্তির নাম ছিল না। আর এই ঘটনা ঘিরে ঝাড়গ্রাম জেলায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। কোলাহল শুরু হয়েছে তৃণমূল নেতৃত্বের অন্দরে। শুক্রবার ঝাড়গ্রাম জেলার সাঁকরাইল ব্লকের রোহিনী চকে বেশ কিছু ছাপানো লিফলেট পড়ে থাকতে দেখা যায়।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ঝাড়গ্রাম ব্লকের বালিভাসাতে চালু হয়েছে টোলপ্লাজা। সেই টোলপ্লাজায় প্রায় আটষট্টি থেকে সত্তর জন কাজ পেয়েছে। সেই কাজ পিছিয়ে দেওয়া নিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠছে। যদিও এই অভিযোগ সম্পুর্ন অস্বীকার করেছেন ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান বিরবাহা সোরেন টুডু। তিনি এদিন ফোনে বলেন “ কে কি করেছে তা কি করে বলব। আমি জড়িত নই। যারা করেছে তারা প্রকাশ্যে আসুক। প্রমান দিক। পাগলের প্রলাপ। যারা কাজ করছেন তারই তো বলতে পারবেন কাউকে টাকা দিয়েছেন কিনা। চোরে মতো রাতের অন্ধকারে ফেলে দিয়ে গিয়েছে”।

[আরও পড়ুন- মালদার ভাবুক গ্রামপঞ্চায়েতটি দখল বিজেপির]

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ঝাড়গ্রাম জেলা জুড়ে নেতৃত্বে বদল হয়েছে। বিরবাহা সোরেন টুডু জেলা সভাপতি ছিলেন। তাঁকে বর্তমানে ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান করা হয়েছে। ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূল সভাপতি হয়েছেন দুলাল মুর্ম। এদিন সকালে সাঁকারই ব্লকের রোহিনী এলাকায় বেশ কিছু কালো কালিতে ছাপানো পোস্টার পড়ে থাকতে দেখা যায়। আর এই পোস্টার গুলিতে  কোন কারো নাম বা সংগঠনের নাম ছিল না। আর এতেই বিভিন্ন হলে প্রশ্ন উঠেছে। অন্যদিকে ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির সভাপতি সুখময় শতপথি বলেন “ যদি এটা হয় তা তৃণমূ্‌লের ক্ষেত্রে নতুন কিছু নয়। যেদিন থেকে ক্ষমতায় বসেছে সেইদিন থেকে তৃণমূলের নেতাদের বিরুদ্ধে টাকা নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। প্রশাসন তদন্ত করে দেখুক।”

 

 

Related Articles

Back to top button
Close