fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

বাড়ছে উদ্বেগ, দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লক্ষ ছুঁইছুঁই

২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬২ হাজার মানুষ, যা এখনও পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ...

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সংক্রমিতের নিরিখে বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকলেও দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে ব্রাজিল, আমেরিকার থেকে অনেকটা এগিয়ে ভারত। করোনা নিয়ে উদ্বেগ দিনকে দিন বেড়েই চলেছে। লকডাউন, সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক ব্যবহার, সচেতনতার প্রচার, কোনও কিছুতেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না মারণ ভাইরাসের সংক্রমণের গতি। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনার কবলে পড়েছেন প্রায় ৭০ হাজার মানুষ। যার জেরে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যাটা পৌঁছে গিয়েছে ৩০ লক্ষের দোরগোড়ায়। শনিবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের  দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৬৯ হাজার ৮৭৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ লক্ষ ৭৫ হাজার ৭০২ জন। এদের মধ্যে ২২ লক্ষ ২২ হাজার ৫৭৮ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬২ হাজার মানুষ। যা এখনও পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ।  মৃত্যু হার অনেকটা কম। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৯৪৫ জনের। ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫৫ হাজার ৭৯৪ জন।

মহারাষ্ট্রে মহামারী নিয়ন্ত্রণে আসার কোনও লক্ষণই নেই। গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১৪ হাজার ১৬১ জন। এ নিয়ে টানা দু’দিন রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ ১৪ হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গেল।  এখনও পর্যন্ত মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লক্ষ ৫৭ হাজার ৪৫০ জন। মারণ ভাইরাসের ছোবলে আরও ৩৩৯ জন মৃত্যু হয়েছে,  মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ৬৯৮ জনে। অন্ধ্রপ্রদেশেও করোনার সংক্রমণে রাশ টানা যাচ্ছে না। এদিন রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে যে স্বাস্থ্য বুলেটিন প্রকাশ করা হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৯ হাজার ৫৪৪ জন। যার ফলে মোট সংক্রামিতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৪০ জনে। মারণ ভাইরাস নতুন করে আরও ৯১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে রাজ্যে মারণ ভাইরাসের বলি হলেন ৩ হাজার ৯২ জন।

দক্ষিণের আর এক রাজ্য তামিলনাডুতে দৈনিক সংক্রমণ ছয় হাজারের গণ্ডির আশেপাশে ঘোরাফেরা করছে। গত ২৪ ঘন্টায় দ্রাবিড়ভূমিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৯৯৫ জন। যার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ লক্ষ ৬৭ হাজার ৪৩০ জনে। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১০১ জন মারা যাওয়ায় রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনার মৃত্যুমিছিলে সামিল হলেন ৬ হাজার ৩৪০ জন। কেরলেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। এক সময়ে মারণ ভাইরাস মোকাবিলায় দেশের কাছে মডেল হয়ে ওঠা পিনরাই বিজয়নের রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও এক হাজার ৯৮৩ জনের শরীরে মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। যার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৪ হাজার ১৮২ জন। করোনার ছোবলে ঝরেছে আরও ১২ প্রাণ। যার ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২০৩ জনে।

আরও পড়ুন: নয়া নির্বাচন কমিশনারের পদে বসলেন প্রাক্তন অর্থসচিব রাজীব কুমার

কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষার ক্ষেত্রে ফের সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়ল ভারত। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ভারতে এক দিনে (শুক্রবার সারা দিনে) ১০,২৩,৮৩৬টি স্যাম্পেল টেস্ট করা হয়েছে, যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, দৈনিক কোভিড-১৯ পরীক্ষায় ১০ লক্ষের মাইলফলক অতিক্রম করেছে ভারত। কেন্দ্রীয় সরকার টেস্টের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছিল। সেইমত প্রত্যেকদিনই টেস্ট হচ্ছে বহু মানুষের। আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ভারতে প্রতিদিনই দ্রুততার সঙ্গে বেড়েই চলেছে কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা। ২১ আগস্ট পর্যন্ত ভারতে মোট ৩,৪৪,৯১,০৭৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। শনিবার সকালে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) জানিয়েছে, শুধুমাত্র ২১ আগস্ট সারাদিনে ১০,২৩,৮৩৬টি স্যাম্পেল টেস্ট করা হয়েছে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close