fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগদান নিয়ে চোপড়ায় রাজনৈতিক চাপানউতোর

দীপঙ্কর দে, ইসলামপুর: উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া ব্লকে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগদানের হিড়িকে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে। চোপড়া ব্লকের লক্ষ্মীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন এলাকায় গত তিনদিনে দুই শতাধিক কংগ্রেস নেতা কর্মীরা দল ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করেছে। তৃণমূলের দাবী, লক্ষ্মীপুরের মানুষ শান্তি চায় তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়ন দেখে হামিদুলের উন্নয়ন দেখে কংগ্রেস ছেড়ে দলে দলে মানুষ তৃণমূলে যোগদান করছে।

অন্যদিকে কংগ্রেসের দাবী করোনার সময়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে চোপড়ার তৃনমুল বিধায়ক হামিদুল রহমানের কোনও মাথাব্যথা নেই। টাকা দিয়ে মানুষকে তৃণমূলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে গন্ডগোল করার জন্য। ওই মানুষগুলো গন্ডগোল করতে চায় না বলে তাঁরা আবার ফের কংগ্রেসে ফিরে এসেছে।

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, গত শনি ও রবিবার এবং বুধবার চোপড়া ব্লকের লক্ষ্মীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের দিঘলগাঁও, যাত্রাগছ, ডাঙ্গাপাড়া নয়াবাড়ি গ্রামের প্রায় দুই শতাধিক কংগ্রেস নেতা কর্মীরা দলত্যাগ করে তৃণমূলে যোগদান করেছে। সবমিলিয়ে রাজনৈতিক চাপানউতোরে ফের একবার শিরোনামে আসতে চলেছে চোপড়ার লক্ষ্মীপুর গ্রাম পঞ্চায়েত।

চোপড়ার তৃনমুল বিধায়ক হামিদুল রহমান বলেন, তৃণমূলে যোগদান করা মানুষরা আমাদেরই দলের ছিলেন। কংগ্রেসিরা এদেরকে ভুল বুঝিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। এখন এদের ভুল ভেঙেছে তাই মমতাদির উন্নয়ন দেখে এরা আবার তৃণমূলে যোগদান করেছে। চোপড়া ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অশোক রায় বলেন, করোনা সংক্রমণ বা পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে হামিদুল রহমানের কোনও মাথাব্যথা নেই। টাকা দিয়ে মানুষকে তৃণমূলে নিয়ে গিয়েছে গন্ডগোল করার জন্য।

Related Articles

Back to top button
Close