fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

বিপুল ভোটে জিতে ফের শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষে, অভিনন্দন মোদির

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: শ্রীলঙ্কার জাতীয় নির্বাচনে ফের জয়জয়কার হল রাজাপক্ষে পরিবারের। বিশাল ব্যবধানে জয়ী হয়ে ফের ক্ষমতা দখল করল মাহিন্দা রাজাপক্ষের নেতৃত্বাধীন শ্রীলঙ্কা পিপলস পার্টি। এই জয়ের খবর পাওয়ার পরই সেদেশের প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসতে চলা মাহিন্দ্রা রাজাপক্ষে-কে ফোন করে অভিনন্দন জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে ভোটগণনা শুরু হতেই বিরোধীদের পিছনে ফেলে অনেক এগিয়ে যায় এসএলপিপি। আর গণনা শেষ হতেই দেখা যায় দেশের মোট ২২৫টি আসনের মধ্যে ১৪৫টি এসেছে তাদের ঝুলিতে। আর তাদের জোট পেয়েছে আরও পাঁচটি আসন। এর ফলে মোট আসনের দুই-তৃতীয়াংশ দখলের মাধ্যমে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে ফের প্রধানমন্ত্রীর গদিতে বসা নিশ্চিত হয়ে যায় প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষে  -এর। দেশের মোট এক কোটি ৬০ লক্ষ ভোটারের মধ্যে ৬৮ লক্ষের ভোট পেয়েছে রাজাপক্ষের নেতৃত্বাধীন শ্রীলঙ্কা পিপলস পার্টি। অর্থাত্‍ মোট ৫৯.৯ শতাংশ ভোট।

শ্রীলঙ্কার জাতীয় নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ পেতেই বিশ্বের প্রথম রাষ্ট্রনেতা হিসেবে মাহিন্দা রাজাপক্ষে-কে ফোন করে অভিনন্দন জানান নরেন্দ্র মোদি। দু’দেশ একে অপরের পাশে দাঁড়িয়ে উন্নয়নমূলক কাজ করবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন। তার উত্তরে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে মাহিন্দা রাজাপক্ষে টুইট করেন, ফোন করে অভিনন্দন জানানোর জন্য আপনাকে ধন্যবাদ জানাই। শ্রীলঙ্কার মানুষদের প্রবল সমর্থনের উপর ভর করে ভারতের সঙ্গে আরও ভাল সম্পর্ক গড়ে তুলব। শ্রীলঙ্কা ও ভারতের মধ্যে যে বন্ধুত্ব ও সম্পর্ক রয়েছে তা আরও দৃঢ় হবে।

আরও পড়ুন: দেশবাসী শিক্ষাব্যবস্থায় বদল চেয়েছিলেন: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

এ বারের নির্বাচনেমাহিন্দার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রানিল বিক্রমসিংঘে। কিন্তু ভোটে সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত হয়েছেন তিনি। তবে নতুন মুখ উঠে এসেছে রাজনীতিতে। প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট রণসিংহে প্রেমদাসার ছেলে এ বারই নতুন তৈরি করে নির্বাচনে নেমেছিলেন। পার্লামেন্ট তাঁর দলই প্রধান বিরোধীর সম্মান পাবে। রণসিংহে প্রেমদাসাকে হত্যা করা হয়েছিল। বাবার কথা স্মরণ করেই নতুন দল তৈরি করেছিলেন তাঁর ছেলে। করোনার কারণে দুইবার পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল শ্রীলঙ্কার নির্বাচন। এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কায় করোনার প্রকোপ অনেকটাই কম। সেই সুযোগেই নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হয়। গোটা দেশে প্রায় আট হাজার স্বাস্থ্যকর্মীকে নির্বাচনের কাজে নিযুক্ত করা হয়েছিল। বুথগুলিতে করোনার নিয়ম পালন হচ্ছে কি না, তার দেখভাল করেছেন তাঁরা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছরের নভেম্বর মাসে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হন গোতাবায়া রাজাপক্ষে। তারপরই নিজের বড়ভাই ও দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষে-কে অন্তবর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ করেন তিনি। এখন জাতীয় নির্বাচনে বিশাল জয় পাওয়ায় ফের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার ক্ষেত্রে আর কোনও সমস্যা রইল না মাহিন্দার।

Related Articles

Back to top button
Close