fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

যেন টলস্টয়ের দেশে শেক্সপিয়রের চিত্রনাট্য! নাভালনির চায়ে বিষপ্রয়োগ, বিরোধী হত্যার অভিযোগে উত্তপ্ত মস্কো

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ সেই শেক্সপিয়রের নাটকের চিত্রনাট্যই লেখা হল রাশিয়ায়। আগাগোড়া ক্রেমলিনের সমালোচক, রাশিয়ার বিরোধী দলের নেতার অ্যালেক্সাই নাভালনিকে চায়ের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে অভিযোগ করলেন তাঁর মুখপাত্র ‌কিরা ইয়ামুশ। আপাতত নাভালনি একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। আপাতত ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসা চলছে তাঁর। অবস্থা আশঙ্কাজনক। এখনও জ্ঞান ফেরেনি বলেই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তাঁরা বলেছেন, ভেন্টিলেটারে আপাতত নাভালনিকে রাখা হয়েছে। পুলিশও গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

মুখপাত্র কিরা ইয়ামুশ জানিয়েছেন, সাইবেরিয়া থেকে মস্কোতে নিজের বিমানে ফিরছিলেন এই নেতা। সেই বিমানের মধ্যেই চা খেয়ে হঠাৎ তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে জরুরি অবতরণ করে বিমান। মুখপাত্রের সন্দেহ ওই চায়ের সঙ্গেই বিষ মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গরম চায়ের ফলে শরীরে দ্রুত সেই বিষ ছড়িয়ে পড়েছে। তাই মারাত্মক ফল হতে পারে।

ভ্লাদিমির পুতিনের একাধিক পদক্ষেপের সমালোচনায় সরব হয়েছেন তিনি। দুর্নীতির অভিযোগে পুতিনের বিরুদ্ধে পথে নামতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। তারপর ২০১৭ সালে তাঁকে বিষাক্ত রাসায়নিক দিয়ে হামলা করে দুষ্কৃতীরা। সেখানে তাঁর চোখে মারাত্মক ক্ষতি হয়। এরপর গতবছর, অর্থাৎ ২০১৯ সালে পুলিশ ডিটেনশন সেন্টারে থাকাকালীন মারাত্মক ভাবে আহত হন তিনি।

সেখানেও তাঁর মুখের হাড় ভেঙে যায় বলে খবর পাওয়া যায়। কিরা ইয়ামুশ অভিযোগ করেছেন, এর আগে পুলিশের ডিটেনশন সেন্টারেও তাঁকে বিষ দিয়ে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছিল। এবারেও তিনি নিশ্চিত কেউ তাঁকে বিষ দিয়ে মারতে চেয়েছে। কী করে এতটা নিশ্চিত হচ্ছেন তিনি?‌ নিজের বক্তব্যের সমর্থনে মুখপাত্র জানিয়েছেন, বিমানবন্দরে তিনি একটি ব্ল্যাক টি খেয়েছিলেন। তারপরই সোজা বিমানে উঠে যান। বিমানে উঠে যাওয়ার পরে তাঁর শরীর খারাপ হয়। ফলে এর থেকে বোঝা

Related Articles

Back to top button
Close