fbpx
দেশহেডলাইন

গেহলটের গদি ফেলতে ‘ষড়যন্ত্র’! কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে এবার FIR কংগ্রেসের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  নাটকের পর নাটক চলছে বিদ্রোহী বিধায়কের রাজনীতিতে।রাজস্থানে সরকার ফেলার চেষ্টা করছে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত ও বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়ক ভাঁওয়ার লাল শর্মার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল কংগ্রেস। অভিযোগ, বিদ্রোহী বিধায়কের সঙ্গেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী টাকা লেনদেন করে রাজস্থানে অশোক গেহলটের  গদি ফেলতে চেয়েছিল। ইতিমধ্যেই কংগ্রেস দুই বিদ্রোহী বিধায়ক ভাঁওয়ার লাল শর্মা এবং বিশ্বেন্দ্র সিংকে পার্টি থেকে বরখাস্ত করেছে। একটি অডিও ক্লিপকে সামনে রেখে বিদ্রোহী বিধায়কদের সঙ্গে বিজেপির লেনদেনের দাবি জানিয়েছে কংগ্রেস। যদিও এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। সবরকম তদন্তের জন্য প্রস্তুতও রয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

যদিও বিজেপি তাঁদের সঙ্গে সঞ্জয় জৈনের যোগের কথা অস্বীকার করেছে। এদিন কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা সাংবাদিক বৈঠক করে দাবি করেন, রাজস্থানের অশোক গেহলট সরকার ফেলতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর নেতৃত্বে ষড়যন্ত্র চলছে। একটি ফোনের কথোপকথনের ট্রান্সক্রিপ্ট পড়ে শোনান রণদীপ। তিনি বলেন, প্রাথমিক ভাবে দেখে মনে হচ্ছে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং শেখওয়াতের নেতৃত্বে রাজস্থানের সরকার ফেলার জন্য ঘোড়া কেনাবেচার ষড়যন্ত্র হয়েছে।

শুক্রবার কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালার  দাবি, দুটি অডিও বার্তায় স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে যে, রাজস্থানের এক শীর্ষ বিজেপি নেতা এবং কেন্দ্রীয় জলশক্তি মন্ত্রীর সঙ্গে সরকার ফেলার দর কষাকষি করছে দুই দলীয় বিধায়ক। এর ভিত্তিতেই দুই বিধায়ককে সাসপেন্ড করা হয়েছে এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর নামে এফআইআর করা হয়েছে। তবে সাংবাদিক সম্মেলনে সেই অডিও বার্তা প্রকাশ করেনি কংগ্রেস। এদিকে, শচীন পাইলট  দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হতেই শীর্ষ কংগ্রেস নেতারা একের পর এক তাঁকে ফোনে যোগাযোগ চেষ্টা করছেন বলে সূত্রের খবর। শীর্ষ কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম বৃহস্পতিবার দাবি করেছেন, পাইলটকে তিনি ফোন করে দেখা করে দলীয় স্তরে আলোচনায় বিবাদ মেটানোর প্রস্তাব দিয়েছেন। সুযোগ কাজে বাগানোর পরামর্শ দিয়েছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী।

আরও  পড়ুন: বিশ্বরেকর্ড গড়ল মোদি সরকারের ‘আরোগ্য সেতু’

তবে বুধবারই শচীন মন্তব্য করেন, তিনি বিজেপিতে যাচ্ছেন না। গান্ধী পরিবারের সামনে তাঁকে ছোট করতেই এসব রটানো হচ্ছে। তারপর কংগ্রেসের তরফে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছিল, শচীন বিজেপিতে যাচ্ছেন না ভাল কথা। কিন্তু হরিয়ানার বিজেপি সরকারের আতিথেয়তা নেওয়া তিনি বন্ধ করুন। বিজেপির সঙ্গে কথা বলাও বন্ধ করুন। আর এদিন সরাসরি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ঘোরা কেনাবেচার ও সরকার ফেলে দেওয়ার অভিযোগ তুলল কংগ্রেস। এবং এফআইআরও দায়ের করল রাজস্থানের এসওজি। পর্যবেক্ষকদের মতে, রাজস্থানের এই চাপানউতোর এখন চলবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close