fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা, আমফান পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের টাকা লুঠ করছে তৃণমূল, প্রতিবাদে বিজেপির ভার্চুয়াল মিছিল

মিল্টন পাল,মালদা: একদিকে করোনা সংক্রমন অন্যদিকে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া আমফান নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে বিজেপির অভিনব সোস্যাল সাইটে ভার্চুয়াল মিছিলের প্ৰচার করল। রবিবার মালদা থানার ছাতিয়ান মোড় থেকে বিজেপি ভার্চুয়াল মিছিলের প্রচার শুরু হয়। এদিন পুরাতন মালদার বিভিন্ন এলাকায় ভার্চুয়াল মিছিলের প্রচারে সাইকেল মিছিল করেন উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু। আগামী ৯ তারিখে সোস্যাল সাইটের মাধ্যমে এই ভার্চুয়াল মিছিল হবে। সেখানে মানুষকে ঘরে বসে লাইভ দেখার আহ্বান জানান সাংসদ।

করোনা সংক্রমনের জেরে লকডাউন তিন মাস অতিক্রম করতে চলেছে। যার ফলে সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর ওপর সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রাজ্যের একাধিক জেলা। মালদা জেলার প্রধান অর্থকরী ফসল আম ও ধানের ও প্রচুর ক্ষতি হয়। ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে দেশের প্রধানমন্ত্রী ছুটে আসেন কলকাতায়। সেখান থেকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টারে পরিদর্শন করেন। প্রধানমন্ত্রীর সেই সময় ঘোষণা করেছিলেন এক হাজার কোটি টাকা বাংলাকে দেওয়া হবে। সেইমতো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কমিটি গঠন করে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার রিপোর্ট চেয়ে পাঠান। সম্প্রতি মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন।

করোনা ও আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের সঠিকভাবে সাহায্য করছে না রাজ্যের শাসক দল। ভিন রাজ্য ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকেরা যে সমস্ত কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রয়েছে সেই সমস্ত জায়গায় পরিযায়ী শ্রমিকদের সঠিক ভাবে খাবার ও জল দেওয়া হচ্ছে না। আর যার ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে পরিযায়ী শ্রমিকেরা। আর এমত অবস্থায় রাজ্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আগামী ৯ জুন সোশ্যাল সাইটের মাধ্যমে ভার্চুয়াল রেলের আয়োজন করেছে বিজেপি। রবিবার ভার্চুয়াল মিছিলের প্রচারে উত্তর মালদা সংসদ খগেন মুর্মু সাইকেল মিছিল করেন।

উত্তর মালদার সংসদ খগেন মুর্মু বলেন, এই ভার্চুয়ালে প্রধান বক্তা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আমরা রাজ্যের তৃণমূল পরিচালিত শাসকদলের দ্বারা বিভিন্নভাবে আক্রান্ত হচ্ছি। আমরা কোন কথা বলতে গেলেই আমাদের কর্মীরা বিভিন্ন ভাবে আক্রান্ত হচ্ছে। আমাদের কর্মীদের বিনা কারণে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলে ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আমফানের ঘটনায় আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে এসেছিলেন। ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করে ছিলেন এবং তা পাঠিয়ে দিয়েছেন। আর এই এক হাজার কোটি টাকা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে ব্যর্থ হয়েছেন।

পরিযায়ী শ্রমিকদের ভিন রাজ্য থেকে রাজ্যে ফেরানোর কাজে ব্যর্থ হয়েছে।পেটের দায়ে শ্রমিকেরা ভিন রাজ্যে কাজ করতে গিয়েছিলেন পশ্চিমবাংলায় কোন কাজ নেই। পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরানোর জন্য বিজেপি সরকার ট্রেন দিয়েছেন। তাই আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহজি বলেছেন পশ্চিমবাংলায় আর নয় অন্যায়। আমরা এই অন্যায়কে আর সহ্য করবনা পশ্চিমবাংলায়। পশ্চিমবাংলায় আর নয় মমতা।

পাল্টা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি দুলাল সরকার বলেন, এসব মানুষদের উত্তর দেওয়া অবান্তর। এক সময়ে সাংসদ সিপিএমে ছিলেন। সেই সময় বিভিন্ন জায়গায় ক্ষমতা দেখিয়েছেন। ফলে কিভাবে লুঠ করতে তা ভালো ভাবে জানে। মালদার মানুষকে বামপন্থীরা এক সময় লুঠ করেছে। তাই এখন বাম ছেড়ে দিয়ে বেঁচে থাকার জন্য গেড়ুয়া বস্ত্র পরেছে। আমফানের ক্ষতির টাকা এখনো এসে পৌঁছায়নি। তাহলে লুঠটা করবে কোথা থেকে। আগে এরা লুঠ করতো। কেন্দ্রীয় বাহিনী রাজ্যে আসলেও কাজ করছে না। এগুলো সব অবান্তর কথা। লকডাউনের সময় মানুষের পাশে দাঁড়ান। লকডাউনে অমিত শাহর কোন খোঁজ ছিল না। আমাদের পঞ্চায়েত গুলি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। বিজেপি কোন কাজ করে নি। সাইকেল নিয়ে মানুষের সামনে নাটক করার কোন সময় আমাদের নেই।

Related Articles

Back to top button
Close