fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনায় আক্রান্ত হল ৯ মাসের শিশু

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক, মালদা: এবার মালদা শহরের বালুচর এলাকায় করোনায় আক্রান্ত হল নয় মাসের এক শিশু। একই সঙ্গে আক্রান্ত হয়েছে কালিয়াচকের ৪ এবং ৮ বছরের আরও দুই শিশু। রবিবার রাতে স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী, ওই তিন শিশুসহ মালদায় আক্রান্ত হয়েছে ৪৪ জন । যাদের মধ্যে ১১ জন মহিলা রয়েছে। মালদা শহরে বালুচর এলাকার ৯ মাসের ওই শিশু আক্রান্ত হওয়ার পর ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়েছে।

যদিও পুরসভা এবং প্রশাসনের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট এলাকা এখনও পর্যন্ত কন্টেন্টমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করা হয়নি। যা নিয়ে বিভিন্ন মহলে উদ্বেগ ছড়িয়েছে। প্রশাসনের উদাসীনতার অভিযোগ উঠেছে। এখনও পর্যন্ত মালদায় মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪২৩। যদিও ২০০ র বেশি আক্রান্ত চিকিৎসায় সাড়া দিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী, চারদিন আগে মালদা শহরের উত্তর বালুচর এলাকায় এক মহিলা করোনায় আক্রান্ত হয়। ওই মহিলা ভিন রাজ্য থেকে ফিরেছিলেন। এই ঘটনার কয়েকদিনের মধ্যে এবার সেই বালুচর এলাকাতেই এবার ৯ মাসের শিশু আক্রান্ত হল।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবারের মোট ৪৪ জন করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে কালিয়াচকে আক্রান্ত রয়েছেন ২৪ জন। জেলার ট্রাফিক পুলিশে কর্তব্যরত ৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন ।

এছাড়াও পুরাতন মালদা ব্লকের রয়েছেন ৬ জন , মালদা মেডিক্যাল কলেজের দুই জন স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। বাকি ছয়জন বিভিন্ন ব্লকের আক্রান্ত হয়েছেন। এদিনের এই আক্রান্তদের মধ্যে অধিকাংশই পরিযায়ী শ্রমিক নয় বলেই জানিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। এতেই গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা করছে প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতরের একাংশ।

এদিকে মালদা শহরের ওই ৯ মাসের শিশু করোনায় আক্রান্ত প্রসঙ্গে প্রশাসনের এক পদস্থ কর্তা জানিয়েছেন , করোনা সংক্রমণ শনাক্ত করতে বিভিন্ন এলাকায় শিবির করে শারীরিক পরীক্ষা এবং লালারসের নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে। সেই শিবির পরীক্ষাতেই ওই নয় মাসের শিশুর সংক্রমণ ধরা পড়েছে। আপাতত শিশুকে তার মায়ের সাথে পুরাতন মালদা ব্লকের নারায়ণপুর এলাকার কোভিড-১৯ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য রাখা হয়েছে। তবে ওই শিশুর মায়ের সংক্রমণ পাওয়া যায় নি।

এদিকে ওই শিশুর পরিবারের অন্য কারোর করোনা সংক্রমণ না হলেও, নয় মাসের শিশুর কিভাবে করোনা পজেটি হল, তা নিয়ে অবশ্য প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য দফতরের কাছ থেকে কোনো সদুত্তর পাওয়া যায় নি।

এদিকে করোনা সংক্রামিত রোগীদের জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিল ইংরেজবাজার পুরসভা। সোমবার করোনা সংক্রামিত রোগীদের জন্য পুরসভার উদ্যোগে অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবার উদ্বোধন করা হল। শহরবাসীর স্বার্থে যদি ইংরেজবাজার শহরের কোন নাগরিকেরা করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া যায় তাহলে পৌরসভার পক্ষ থেকে অ্যাম্বুলেন্স তার বাড়ি পৌঁছে গিয়ে তাকে চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যাবে।

ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য বাবলা সরকার বলেন, এই বিশেষ অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা করোনা আক্রান্ত রোগীদের সংশ্লিষ্ট এলাকার চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হবে। পাশাপাশি এদিন পুরসভার যেসব কর্মীরা করোনা মোকাবিলায় কাজ করছেন, তাদেরকেও পিপিই কিট তুলে দেওয়া হয়েছে ।

Related Articles

Back to top button
Close