fbpx
কলকাতাহেডলাইন

করোনা প্রতিরোধে আবারও ভরসা আয়ুর্বেদ, ম্যাজিক স্প্রে ছড়িয়েই বেলগাছিয়া গ্রিন জোন হয়েছে, দাবি স্প্রে প্রস্তুতকারক সংস্থার

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: ম্যাজিক স্প্রে ছড়িয়েই বেলগাছিয়া, রাজাবাজার পার্ক সার্কাসের মত রেড জোন এলাকা গুলো গ্রিন জোনে পরিণত করা গেছে। এমনটাই চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন স্প্রে প্রস্তুতকারক সংস্থার কর্ণধার সুপ্রিয় কুমার। যদিও এই স্প্রে আইসিএমআর বা হু-এর অনুমোদিত নয়। এটি একটি আয়ুর্বেদ প্রোডাক্ট। যার নাম এনিয়ন ডিট্ক্স স্প্রে।

 

 

করোনা সংক্রমণের জেরে কলকাতা পুরসভার অধিকাংশ এলাকা রেড জোনের অন্তর্গত। এর মধ্যে লালারস নমুনার সংগ্রহ থেকে শুরু করেছে। প্রয়োজনে হোমিওপ্যাথি ও অ্যালোপ্যাথি ওষুধ দেওয়া হচ্ছে পুরসভার পক্ষ থেকে। এরমধ্যেই আয়ুর্বেদিক স্প্রে দুর্দান্ত কাজ করছে বলে দাবি করলেন সংস্থার প্রস্তুতকারক। সুপ্রিয় কুমারের কথায়, “এটি হাই অ্যালকালাইল বেসে ১০.১ তে তৈরি একটি প্রাকৃতিক স্প্রে। যার মধ্যে কোনরকম রাসায়নিক নেই। যদিও এই স্প্রে আয়ুর্বেদ ড্রাগ কন্ট্রোলের অনুমোদিত হলেও করোনাভাইরাস নির্মূলে সক্ষম কিনা তা স্পষ্ট উল্লেখ নেই কোথাও। তবে ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া মারতে সক্ষম। একই সঙ্গে কলকাতায় ঘিঞ্জি ও ঘন বসতি পূর্ণ এলাকায় এর ব্যবহারে অভূত পুর্ব ফল মিলেছে।

 

 

সুপ্রিয় কুমারের আরও দাবি, “ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া যে কোন কিছুতে এক মাইক্রো মিলি সেকেন্ডের মধ্যেই ধ্বংস করতে পারে এই স্প্রে। এটি একটি আয়নিক স্প্রে আয়ন ও হাইড্রোজেনের বিপুল সম্ভার নিয়ে তৈরি। বডিতে স্প্রে করা হলে তা ভাইরাসের প্রোটিন কে ধ্বংস করে দেয়। একবার এই স্প্রে করলে প্রায় এক লক্ষ আয়ন বের হয় আর সেই আয়ন ভাইরাসের ওপর পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই এক মাইক্রো মিলি সেকেন্ডের মধ্যেই ধ্বংস করে দেয়”।

 

 

পরীক্ষামূলকভাবে এই স্প্রে ইতিমধ্যেই রাজাবাজার, পার্ক সার্কাস, বেলগাছিয়ার মতো বিভিন্ন জায়গায় প্রয়োগ করে পুরসভা অভূতপূর্ব ফল পেয়েছে বলেও এদিন দাবি করেছেন তিনি। সে কারণে পুরসভা কলকাতার বাকি অংশে এই স্প্রে প্রয়োগ করার পরিকল্পনা চালাচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close