fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মহারাষ্ট্র ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকের দেহে করোনা সংক্রমণ, চাঞ্চল্য মোহনপুরে , করোনায় আক্রান্তের খোঁজ গারুলিয়াতেও 

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: দেশে এবং রাজ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে কোভিড ১৯ আক্রান্তের সংখ্যা । সম হারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় । উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় প্রথম থেকেই করোনায় আক্রান্তের হার বেশি । সম্প্রতি উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় নতুন করে করোনা সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে । এবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় করোনায় আক্রান্ত হলেন এক পরিযায়ী শ্রমিক । উত্তর ২৪ পরগনার মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ৫ নম্বর গ্রাম সংসদের অন্তর্ভুক্ত ল্যাম্ফ বাজার এলাকায় করোনা আক্রান্ত ওই পরিযায়ী শ্রমিকের সন্ধান পাওয়া গেছে । মঙ্গলবার রাতে তাকে রাজারহাটের করোনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । অন্যদিকে, গারুলিয়া পুরসভার ২১ নম্বর ওয়ার্ডে এক করোনা আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে । ওই রোগীকেও ভর্তি করা হয়েছে রাজারহাটের করোনা হাসপাতালে । সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের একাংশ সিল করে দিয়েছে প্রশাসন । এলাকায় চলছে জন সচেতনতা মূলক প্রচার ।

জানা গেছে, চলতি মাসের ১৮ মে তারিখে মহারাষ্ট্র থেকে এ রাজ্যের মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় নিজেদের বাড়িতে ফিরে আসে ৫ জন পরিযায়ী শ্রমিক । তারা প্রত্যেকেই ১৪ দিনের জন্য হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিল । তাদের সকলেরই লালা রস পরীক্ষা করা হয় । মঙ্গলবার তার রিপোর্ট আসলে দেখা যায় একজন পরিযায়ী শ্রমিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে । বাকিদের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে । এরপর প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই করোনা আক্রান্ত পরিযায়ী শ্রমিককে প্রশাসনের পক্ষ থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে রাজারহাটের করোনা হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয় । এদিকে এই ঘটনায় আক্রান্তের বাড়ি সংলগ্ন রাস্তাটি ব্যারিকেড করে ঘিরে দিয়েছে প্রশাসন ।

স্থানীয় বাসিন্দাদের গৃহবন্দী থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে । মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় এই নিয়ে বেশ কয়েকজন করোনায় আক্রান্ত হলেন । তবে মহারাষ্ট্র থেকে বাড়ি ফেরা কোন পরিযায়ী শ্রমিক এই প্রথম করোনায় আক্রান্ত হলেন । মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার উপপ্রধান নির্মল কর বলেন, “গত শনিবার ৫ জন শ্রমিক মহারাষ্ট্র থেকে তাদের বাড়িতে ফিরে আসেন । তারা ভিন রাজ্যে কেউ সোনার কারিগর হিসেবে, কেউ দর্জি হিসেবে কাজ করত । তারা সবাই গৃহ বন্দী ছিল । তবে তাদের সকলের করোনা পরীক্ষা করা হয় । সেই রিপোর্ট আসে মঙ্গলবার । তাতেই দেখা যায় ৫ পরিযায়ী শ্রমিকের মধ্যে একজন করোনা আক্রান্ত । তাকে প্রশাসনের গাড়ি এসে হাসপাতালে নিয়ে গেছে । আমরা পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে এই গ্রাম সংসদ এলাকাটি সকাল থেকেই জীবাণু মুক্ত করে দিলাম । স্থানীয় বাসিন্দাদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে । এই এলাকাটি কোয়ারেন্টাইন জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে । গৃহ বন্দী এলাকার বাসিন্দাদের প্রয়োজনীয় খাদ্য দ্রব্য বা নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস আমাদের স্বেচ্ছাসেবকদের ফোন করলে তারা পৌঁছে দেবে ।”

আরও পড়ুন: নিয়মিত মামলার শুনানির আবেদনে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতিকে চিঠি

গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় । এলাকায় বসেছে পুলিশ পিকেট । অন্যদিকে, ফের করোনা সংক্রমণের খোঁজ মিলেছে উত্তর ২৪ পরগনার গারুলিয়া পুরসভা এলাকায় । এবার গারুলিয়া পুরসভার ২১ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ ডানবার রোড এলাকায় করোনায় আক্রান্ত হলেন এক যুবক । ওই যুবক কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন । জানা গেছে তার ডায়ালাসিস চলছিল । ব্যারাকপুরের এক বেসরকারি হাসপাতালে ওই যুবক চিকিৎসা করিয়েছিলেন । সেই বেসরকারি হাসপাতালে করোনার প্রকোপ দেখা দিয়েছিল । এরপর ওই যুবককে তার পরিবারের সদস্যরা কলকাতার বাঙুর হাসপাতালে নিয়ে যান চিকিৎসার জন্য । সেখানে ডায়ালাসিস হয় ওই যুবকের । তবে সেখানেই তার করোনা পরীক্ষা করা হয় । মঙ্গলবার রাতে তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে । এরপর প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই যুবককে রাজারহাটের করোনা হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয় । আক্রান্তের পরিবারের ৭ জন সদস্যকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বারাসাতের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে । এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা । দক্ষিণ ডানবার রোড এলাকাটি রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে পুলিশ । ওই রাস্তাটি ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে দিয়েছে পুলিশ ।

.এদিকে এই রেড জোন এলাকাতেই বাড়ি বিদায়ী তৃণমূল কাউন্সিলর চন্দ্রভান সিং ও স্থানীয় বিজেপি নেতা কুন্দন সিংয়ের । বিদায়ী কাউন্সিলর চন্দ্রভান সিং বলেন, “আমাদের ধারনা ডায়ালাসিসের জন্য বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হন ওই যুবক । আপাতত তাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে রাজারহাটের করোনা হাসপাতালে । এলাকার বাসিন্দাদের সচেতন করা হয়েছে ।” বিজেপি নেতা কুন্দন সিং বলেন, “স্থানীয় বাসিন্দারা এতদিন করোনাকে অবহেলা করে গেছে । এখন যেই একজন আক্রান্ত হল, তখন সবার টনক নড়েছে । এখন সবাই সচেতন হচ্ছে । এই এলাকাটি জীবানুমুক্ত করা হয়েছে । এলাকার বাসিন্দাদের ঘরে থাকতে নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন ।” গারুলিয়ায় এখনো পর্যন্ত ৪ জন করোনা আক্রান্তের খোঁজ মিলল । স্থানীয় বাসিন্দারা এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন

Related Articles

Back to top button
Close