fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

চিনের উইঘুর মুসলিম-অধ্যুষিত জিনজিয়াংয়ে করোনা হানা

বেজিং, (সংবাদ সংস্থা): মহামারী করোনা সংক্রমণ বারে বারে ফিরে আসছে চিনে। সূত্রের খবর, দেশের অন্যান্য জায়গার সঙ্গে এবার করোনা ছড়িয়ে পড়েছে উইঘুর মুসলিম-অধ্যুষিত জিনজিয়াং অঞ্চলে। চিনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় জিনজিয়াং অঞ্চলে ৪১ জন করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন।
প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, চিনে নতুন করে ৬১ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে চারজন বিদেশফেরত এবং বাকি ৫৭ জন স্থানীয়ভাবে সংক্রমিত রোগী। বিদেশফেরত চার রোগীর মধ্যে দুজন ইনার মঙ্গোলিয়ার এবং একজন করে ফুচিয়ান ও সিচুয়ান প্রদেশের। স্থানীয়ভাবে ১৪ জন লিয়াওনিং প্রদেশের ও দুইজন চিলিন প্রদেশের। তবে, চিনের কোথাও কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি।
প্রসঙ্গত, গত দু-সপ্তাহ আগে জিনজিয়াংয়ের উরুমকি শহরে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পায়। পরে কর্তৃপক্ষ প্রাদেশিক এই রাজধানীতে লকডাউন ঘোষণা করে। করোনা সংক্রমণের বিস্তার ঠেকাতে দ্রুত রাজ্যের সঙ্গে সব ধরনের বিমান, স্থল ও রেল সার্ভিস বন্ধ করা হয়। তবে, মহামারী আকারে করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর চিন সরকার করোনা বিষয়ে হুবেইসহ অন্যান্য প্রদেশে তৎপরতা শুরু করলেও জিনজিয়াংয়ে প্রদেশের সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায় উইঘুরদের বিষয়ে তেমন গুরুত্ব দেয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। গত ফেব্রুয়ারিতে উইঘুর সম্প্রদায়ভুক্ত ফরাসি সমাজবিজ্ঞানী দিলনুর রেইহান বলেন, “উইঘুর সম্প্রদায়ের সদস্যরা কঠিন বিপদের সম্মুখীন। করোনাভাইরাস প্রাদুভার্বের মধ্যেই আমাদের পরিবারের সদস্যরা বন্দি শিবিরে বসবাস করছেন। আমরা জানি না তারা পর্যাপ্ত খাদ্য-পানি পাচ্ছে কি না বা তাদের যথেষ্ট মাস্ক আছে কি না।”
অন্যদিকে, রাষ্ট্রপুঞ্জের বিশেষজ্ঞ ও মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, চিন সরকার কমপক্ষে ১০ লক্ষ উইঘুর মুসলিমকে জিনজিয়াংয়ের আশ্রয় কেন্দ্রে আটকে রেখেছে। সূত্রের খবর, চিনের পশ্চিমাঞ্চলীয় এই প্রদেশে অন্তত এক কোটি সংখ্যালঘু উইঘুরের বসবাস। যারা সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক ও ধর্মীয় নিপীড়ন এবং বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। এই ইস্যুতে চিন ও আমেরিকার মধ্যে টানাপোড়েন চলছে। গত ১০ জুলাই, চিনের শক্তিশালী পলিটব্যুরোর এক সদস্যসহ চার কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। শুধু তাই নয়, উইঘুর সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে ১১ চিনা কোম্পানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

Related Articles

Back to top button
Close