fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত কলকাতা পুলিশের ৩৮ জন কর্মী, রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত ৩৪০, মৃত ১০

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ১০০ জন পেরিয়ে ফের কলকাতায় বাড়ল করোনা আক্রান্ত পুলিশের সংখ্যা। তবে এবার সামনে এসেছে কিছুটা উদ্বেগ বাড়াবার মতই তথ্য। লালবাজার সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত ২৪ ঘন্টাতেই কলকাতা পুলিশের ৩৮ জন পুলিশকর্মী ও অফিসারের শরীরে করোনা ভাইরাস ধরা পড়েছে। অন্যদিকে, বুধবারের স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিনে জানা গিয়েছে, ২৪ ঘন্টায় ৩৪০ জন নতুন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে, ১০ জন মারা গিয়েছেন এবং ১৭০ জন সুস্থ হয়েছেন।

এদিকে কলকাতা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্তদের মধ্যে বেশ কয়েকজন হলেন কমব্যাট ব্যাটেলিয়ান ও সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য। রয়েছেন ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট গ্রুপের (ডিএমজি) পুলিশকর্মীরাও। এ ছাড়াও পুলিশ ট্রেনিং স্কুল বা পিটিএসের ব্যারাকে থাকেন, এমন কয়েকজনেরও করোনা ধরা পড়েছে। কয়েকটি থানা ও ট্রাফিক গার্ডের পুলিশকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন সিভিক ভলান্টিয়াররাও। থানার মধ্যে গড়ফা থানার কর্মীরা বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। সম্প্রতি পর পর বহু পুলিশকর্মীর লালারস পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। তার ফলেই একসঙ্গে এত আক্রান্তের খবর এসেছে। আক্রান্ত পুলিশকর্মীদের সংস্পর্শে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের হোম কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, ফের ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে ৩৪০ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসায় মোট আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬৫০৮ জন। আরও ১০ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে মোট করোনায় মৃত্যু ২৭৩ জনের। অন্যদিকে, করোনা আক্রান্ত থেকে অন্য উপসর্গে ৭২ জনের মৃত্যুর হিসেব ধরলে রাজ্যে মোট মৃত্যু ৩৪৫ জনের।
২৪ ঘন্টায় আরও ১৭০ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ২৫৮০ জন। তার মধ্যে ১১৮ জনই উত্তর দিনাজপুরের। শুধু তাই নয়, এই জেলায় এদিন নতুন কেউ সংক্রামিত হওয়ার খবরও পাওয়া যায়নি। আর তার কারণেই সুস্থ হওয়ার হার বেড়ে ৩৯.৬৪ শতাংশ। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ৩৫৮৩ জন। তার মধ্যে এ দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ১৬০ জনের।

বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৪১ টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ২৩২২২৫ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৯৪৯৯ জনের।
এর মধ্যে ৩ টি ল্যাবে চলতি সপ্তাহেই অনুমোদন পেয়েছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের ৬৯ টি করোনা হাসপাতাল, ১৬ টি সরকারি এবং ৫৩ টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ৮৭৮৫ টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯২০ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে ৩৯২টি। তার ১৯.৪৪ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন। সরকারি ৫৮২ টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ১৮৫২৫ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৫৬১১৮ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১৪৮২৮৭ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৯৬৫৪১ জনকে। এছাড়াও এই প্রথম শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত কতজন পরিযায়ী শ্রমিককে রাজ্য সরকারের তরফে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে এবং ছেড়ে দেওয়া হয়েছে সে তথ্য এদিন তুলে ধরা হয়েছে বুলেটিনে। জানানো হয়েছে, ১০৬৬৩ টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ১৩০৫৯৪ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে ৩৪৭১০ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় এদিন ৯৯ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মোট সংক্রমণ ২৩৯৪ জনের। এদিন কলকাতায় আরও ৭ জনের মৃত্যু হওয়ায় কলকাতাতেই মোট মৃত্যু ২২৯ জনের। এর পরেই হাওড়ায় ৫৮ জনের সংক্রমণ বেড়ে মোট সংক্রমণ ১২১৪ জনের। এখানে এদিন আরও ১ জনের মৃত্যু হওয়ায় এই জেলায় মোট মৃত্যু সংখ্যা ৩৯ জন।

উত্তর ২৪ পরগনায় ৪২ সংক্রমণ বেড়ে মোট সংক্রমণ ৮৬৯ জনের। এছাড়াও উত্তরবঙ্গের দার্জিলিংয়ে ১ জনের এবং দক্ষিণবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া উত্তরবঙ্গের উত্তর দিনাজপুর এবং দক্ষিণবঙ্গের ঝাড়গ্রাম ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে বাকি সব ক’টি জেলাতেই।

Related Articles

Back to top button
Close