fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউন সফল করতে কোলাঘাটে ৩০ ক্লাবের সমবেত উদ্যোগ

ভাস্করব্রত পতি, তমলুক : কিংবদন্তীর ছড়ায় আছে ‘কাঠ কয়লা পাট, তিন নিয়ে কোলাঘাট’। আসলে এখন তা হয়ে দাঁড়িয়েছে ‘দোকান বাজার হাট, লোকারন্য কোলাঘাট’। মানুষের চরম অপরিণামদর্শী আচরণের জন্য কোলাঘাট জুড়েই এই ছড়া এখন লোকের মুখে মুখে।

এমনিতেই পূর্ব মেদিনীপুরকে রেড জোনের মধ্যে ফেলা হয়েছে। তাই কোরোনা সংক্রান্ত যাবতীয় সরকারি নিয়ম মেনে চলতে হবে জেলাবাসীকে। জেলার অন্যান্য জায়গার মতো পূর্ব মেদিনীপুরের প্রবেশদ্বার কোলাঘাটের লোকজনও মানছেননা লকডাউনের কোনও নিয়মই।

এমতবস্থায় কোলাঘাটে লকডাউন সফল করতে তৎপর কোলাঘাটের কিছু শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ। কিছু অসেচতন মানুষ এবং কিছু বেপরোয়া ক্রেতা-বিক্রেতা লকডাউন মানছেননা।

পরোয়া করছেননা এই মারণ রোগের প্রতিরোধে করণীয় উদ্যোগগুলোকে। সারা কোলাঘাট জুড়েই উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বিপজ্জনক ভিড় দেখা যাচ্ছিল। এই অবস্থায় কোলাঘাটের ব‍্যবসায়ী সমিতি, কোলাঘাটের প্রায় তিরিশটি ক্লাব সংগঠনের প্রতিনিধিরা প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রেখে ঐক‍্যবদ্ধ হন। গত ২৫ শে এপ্রিল প্রশাসনের সাথে আলোচনায় বসা হয়। এরপর লকডাউন সফল করতে ও কোলাঘাটকে করোনা ভাইরাস মুক্ত করতে এই বেসরকারি উদ্যোগে সারা কোলাঘাট ও পাশাপাশি গ্রামগুলিতে জোরদার প্রচার শুরু হয়। পথচলতি মানুষদেরকে বোঝানো হয়।

কোলাঘাটের ক্লাব প্রতিষ্ঠানগুলির প্রতিনিধিরা মোট ছ’টি ছোট ছোট দল করে প্রতিটি দোকান, ক্রেতাদের কাছে ও বাড়ি বাড়ি প্রচার অভিযান চালায়। ফলস্বরূপ কোলাঘাটের স্টেশন বাজার, নতুন বাজার, বিদ‍্যাসাগর মোড়, পুরাতন বাজার, খড়িচক মোড় সর্বত্র লকডাউনের সাফল্যের চিত্র পাওয়া গেছে বলে ‘বলাকা টুর অ্যাণ্ড ট্রাভেলস’ এর কর্ণধার অসীম দাস জানান।

সেই সাথে মাইক প্রচারে নিজেদের সুরক্ষা বলয় এইভাবে সফল করতে আগামী দিনগুলোতেও সর্বস্তরের ব‍্যবসায়ী, ক্রেতা ও স্থানীয় বাসিন্দাদের অনুরোধ করা হয়। বিকেল হলেই রূপনারায়ণ পাড় বরাবর এক শ্রেণীর মানুষ আসেন হাওয়া খেতে। তাঁদেরকেও বোঝানো হয়েছে ঘর থেকে না বের হতে।

Related Articles

Back to top button
Close