fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভবিষ্যত অন্ধকার ক্ষৌরকারদের

হিতৈষী দেবনাথ, আলিপুরদুয়ার: চাষ করেছিল চিন, সেই চিনের চাষ করা “করোনা” এই মূহুর্তে গোটা বিশ্বের অর্থনীতির উপর চাবুক চালিয়ে যাচ্ছে। সেই চাবুকের ঘায়ে গোটা বিশ্বের অর্থনীতির গ্রাফ প্রতিনিয়ত নিম্নমুখী। যদিও গোটা বিশ্বের তাবড় তাবড় অর্থনীতিবিদেরা এই পরিস্থিতি থেকে “করোনা”কে বুমেরাং করে দিয়ে ভবিষ্যতে গোটা বিশ্বের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করবেন এটা হলফ করেই বলাই যায়।

কিন্তু বর্তমানে বিশ্বের অর্থনীতির থেকেও করুণ অবস্থা আলিপুরদুয়ারের তথা গোটা ভারতবর্ষেরই সেলুনের কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকা ক্ষৌরকারদের। লকডাউন আরম্ভ হওয়ার পর থেকেই আলিপুরদুয়ার জেলা জুড়ে বন্ধ রয়েছে সমস্ত সেলুন।

যার ফলে আলিপুরদুয়ার ২ নং ব্লক সহ গোটা জেলাতেই নাপিতেরা এই মূহুর্তে বেকারের খাতায় নাম নথিভুক্ত করিয়েছেন। সরকারের পক্ষ থেকে বিশেষ বিশেষ কিছু কিছু ক্ষেত্রে লকডাউনের কার্যকারিতা কিছুটা শিথিল করা হলেও, “সেলুন” খোলার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি এখনো। যার ফলে প্রবল সমস‍্যায় ক্ষৌরকারেরা।

আলিপুরদুয়ার ২ ব্লকের তেতুল তলা এলাকার ক্ষৌরকার কর্মী আশুতোষ শীলশর্মা বলেন, আমি পরিবারের সদস‍্যদের নিয়ে আধপেটা খেয়ে দিন কাটাচ্ছি। আমার মতো আমার সকল ক্ষৌরকার ভাইয়েরাই একই সমস‍্যার সন্মুখীন এই মূহুর্তে।

আশুতোষ বাবুর অভিযোগ, এই চরম দুর্দিনে রেশন সামগ্রী ছাড়া, কোনও সরকারি সাহায্য পাননি তিনি। জানা গিয়েছে, আলিপুরদুয়ার ২ ব্লকের ক্ষৌরকার কর্মীরা এই অচলাবস্থা কাটাতে আন্দোলনের রুপরেখা তৈরী করতে খুব শীঘ্রই সামাজিক দূরত্বের বিধি মেনে বৈঠকে বসবেন।

Related Articles

Back to top button
Close