fbpx
কলকাতাহেডলাইন

পাড়ার করোনা রোগীকে এবার দেখতে হবে পাড়ার চিকিৎসককেই, ভার্চুয়াল ট্রেনিং দিল স্বাস্থ্য দফতর

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: প্রথম দিকে করোনা মহামারী সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর কিছু কোভিড হাসপাতাল নির্দিষ্ট করেছিল রাজ্য প্রশাসন। কিন্তু উত্তরোত্তর রোগীর সংখ্যা বিপুল পরিমাণে বেড়ে যাওয়ায় অতি সঙ্কটজনক রোগী ছাড়া বাকিদের হোম আইসোলেশনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সব ক্ষেত্রে রোগী হোম আইসোলেশনে নিয়ম না মানায় বিপদ ঘটছে, এমন অভিযোগও উঠছিল।

সেই কারণেই সাধারণ করোনা রোগী যাতে তার পাড়াতেই পরিষেবা পান, তার জন্য আই এম এ ও আই এ পি সদস্যদের যুক্ত করে ভার্চুয়াল ট্রেনিং দিল স্বাস্থ্য দফতর। যাতে হোম আইসোলেশনে থাকা রোগীদের ওপর নজরদারি করতে পারেন পাড়ার চিকিৎসকরাই।
উত্তর ২৪ পরগনা জেলায়  কোভিড ম্যানেজমেন্ট প্রোটোকল মনিটরিং কমিটির জয়েন্ট কো-অর্ডিনেটর বিবর্তন সাহা জানান, এই কাজের জন্য জেলার দুই সংগঠনের চিকিৎসকদের একটি টিমকে ভার্চুয়াল ট্রেনিং করিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। মূলত ভার্চুয়ালি দেওয়া ট্রেনিংয়ে আই এম এ ও আই এ পি সদস্যদের করোনা রোগির চিকিৎসায় কী প্রোটোকল মেনে চিকিৎসা করতে হবে তা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। বারাসত আই এম এ এর সভাপতি চিকিৎসক তপন বিশ্বাস জানান,  সারা উত্তর ২৪ পরগনায় ২৭ টি আই এম এ এর শাখা রয়েছে।
সেই সব সংগঠনের কয়েকজন  সদস্যকে স্বাস্থ্য দপ্তর ট্রেনিং দিয়ে দিয়েছে। এবার তারাই বাকিদের ট্রেনিং দেবেন। সমস্ত জেলাতে এভাবেই করোনা রোগীদের চিকিৎসার ধাপে ধাপে বিকেন্দ্রীকরণ করা হবে বলে জানান তিনি।
 জেলা কোভিড ম্যানেজমেন্ট প্রোটোকল মনিটরিং কমিটির জয়েন্ট কো-অর্ডিনেটর  চিকিৎসক বিবর্তন সাহা জানান,  আই এম এ ও আই এ পি সদস্যরা ফোনে ও ভিডিও কলের মাধ্যমে  হোম আইসোলেশনে থাকা রোগীর সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে। পুরসভা থেকে ওয়ার্ডভিত্তিক করোনা পজিটিভ রোগীদের লিস্ট দিয়ে দেওয়া হবে। তাদেরকেই তারা চিকিৎসা পরামর্শ দেবেন।
এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় লজিস্টিক সাপোর্ট দেবে সেই পুরসভা।আপাতত কলকাতা ,উত্তর ২৪ পরগনা ও নদিয়াতে এই ব্যবস্থা কার্যকর করা হচ্ছে বলে চিকিৎসক বিবর্তন সাহা জানান। ধাপে ধাপে এই পদ্ধতিতে অন্যান্য রাজ্যেও তা চালু হয়ে যাবে।

Related Articles

Back to top button
Close