fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পুলিশের মানবিক মুখ, পণ্যবাহী লরির চালকদের মুখে অন্ন তুলে দিলেন উর্ধিধারীরা

অভিষেক আচার্য, কল্যাণী: কথায় আছে বাঘে ছুঁলে আঠারো ঘা, আর পুলিশ ছুঁলে ৩৬ ! পুলিশ সম্পর্কে সাধারণ মানুষের তিক্ত অভিজ্ঞতাই এই প্রবাদের জন্ম৷ কিন্ত মহামারী পরিস্থিতিতে এই প্রবাদ একেবারেই বেমানান৷ এরকমই এক অবিশ্বাস্য কাজ করে দেখালেন নদীয়া জেলার হরিণঘাটা থানার পুলিশ অফিসার ৷ যাঁদের হাতে ধরে প্রমাণিত হল, পুলিশের পোশাকের ভিতরেও, বাস করে ভালো মানুষ ! সম্প্রতি এরকমই এক ছবি দেখল গোটা নদীয়া ৷ যেখানে দূর দুরান্তে পণ্য নিয়ে যাওয়া লরির চালকদের খাবার বিতরণ করলেন হারিনঘাটার পুলিশ।

কোভিড-19 এর প্রকোপে জারি হয়েছে লকডাউন৷ দেড় মাসের ওপর বন্ধ দোকানপাট। সম্প্রতি রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের সিদ্ধান্তে কিছু দোকানপাট খুলেছে ঠিকই। কিন্তু সরকারি নিয়মানুসারে সন্ধ্যের মধ্যেই বন্ধ করে দিতে হয় দোকান। অপরদিকে, কিছু মালবাহী ও পণ্য সামগ্রী গাড়ির ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে সরকার। ফলে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে শিলিগুড়ি, বহরমপুর সহ বিভিন্ন জায়গায় মাল নিয়ে যান লরির চালকরা। এতে চালকরা খুশি হলেও হাইওয়ের ধারে ধাবা গুলো বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন তাঁরা। এক লরির চালক বলেন, অনেকদিন পর গাড়ি চালাচ্ছি ঠিকই। কিন্তু ধাবাগুলি বন্ধ থাকায় রাতে পেটে কিছু জুটছে না।

অন্যদিকে, পুলিশের নাকা চেকিং চলছে জোরকদমে। বাদ নেই ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কও। লরি দেখলেই গাড়ি দাঁড় করাচ্ছে পুলিশ। গাড়ি থেকে চালক, খালাসিদের নামিয়ে উর্ধিধারী জিজ্ঞাসা করছেন, তাঁরা খেয়েছে কিনা। এই চিত্র তাঁরা কখনও স্বপ্নেও দেখেনি। ফলে আকস্মিক পুলিশের কাছ থেকে এহেন ব্যবহার পেয়ে তাঁরা অবাক হলেও খুশি। শুধু তাই নয়, ক্ষুধার্ত চালক ও খালাসীদের হাতে পুলিশ তুলে দিয়েছে খাবারের প্যাকেট, ফল ও জলের বোতল।

হরিণঘাটা থানা সূত্রের খবর, যেহেতু রাস্তায় বন্ধ দোকান, ধাবা। তাই রাস্তায় খিদে পেলে কোনো খাবারই পাবেন না দূর দুরান্তে যাওয়া লরির চালকরা। তাই তাঁদের জন্য এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। চালক ও খালাসিদের জন্য হোটেল থেকেই আনা হয়েছে স্বাদের খাবার ৷ কেউ খেলেন রুটি তরকারি আবার কেউ কেউ ভাত, ডাল খেয়ে রওনা দিলেন নিজেদের গন্ত্যবে।

নতুন রূপে পুলিশদের দেখে আহ্লাদে আটখানা তাঁরা। একটা সময় হাত পেতে ঘুষ নেওয়া ছবি ছিল জলভাতের মত। সেই হাতই তুলে দিচ্ছে খাবার। সত্যি, একটা মহামারী ভক্ষককে পরিণত করেছে রক্ষকে। আর তাই আজ থেকে লরির চালকদের কাছে পুলিশ শুধুই নতুন বন্ধু !

Related Articles

Back to top button
Close