fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

করোনা পজিটিভ প্রগতি ময়দান থানার পুলিশ আধিকারিক, সস্ত্রীক ভর্তি হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আবার করোনা আক্রান্তের খবর মিলল কলকাতা পুলিশে। ইতিমধ্যেই তিন জন পুলিশকর্মীর করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর এসেছে। এবার চতুর্থ করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এল প্রগতি ময়দান থানার শীর্ষ আধিকারিকের। এমনকী তাঁর স্ত্রীও করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন হাসপাতালে। দু’জনেই বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ১৭ এপ্রিল সর্বপ্রথম কলকাতা পুলিশে গার্ডেনরিচ থানার ওসির করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। তার পরে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে বড়তলা থানার এক কনস্টেবলের। ১ মে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের এক কনস্টেবলের। আর তারপরেই এ দিন প্রগতি ময়দান থানার ওসির করোনা পজিটিভ রিপোর্ট জানা যায়। তাঁর স্ত্রীর এখনও চূড়ান্ত রিপোর্ট আসেনি।

ঘটনায় যথেষ্ট আতঙ্কে রয়েছে কলকাতার পুলিশমহল। জানা গিয়েছে, গত ২৭ এপ্রিল প্রগতি ময়দান থানার ওই পুলিশ আধিকারিকের শরীরে উপসর্গ দেখা দেয়। কিন্তু মৃদু উপসর্গ হওয়ায় তিনি বুধবার থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনেই ছিলেন। এরমধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়েন তার স্ত্রীও। কিন্তু কয়েক দিন ধরে তাঁর জ্বর-সর্দি না সারায় তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন এবং করোনা পরীক্ষা করান। তাতেই ধরা পড়ে তিনি করোনা পজিটিভ।

এই খবর কানে আসামাত্রই সরাসরি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ফোন করে ওসি এবং তার স্ত্রীর স্বাস্থ্যের খোঁজ নিয়েছেন পুলিশ কমিশনার। তাদের সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন। একই সঙ্গে প্রগতি ময়দান থানা এবং ব্যারাকও স্যানিটাইজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গত কয়েকদিন যাঁরা যাঁরা ওই পুলিশ আধিকারিকের সংস্পর্শে এসেছিলেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার হেয়ার স্ট্রিটের পুলিশ কোয়ার্টারও স্যানিটাইজ করা হবে।

ইতিমধ্যেই কলকাতা পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী বিভিন্ন থানা, ট্রাফিক গার্ড এবং ব্যারাকগুলি জীবাণুমুক্তকরণের কাজ শুরু করেছে। তবে সেই কাজে আরও কি ভাবে গতিবৃদ্ধি করা যায়, তা নিয়ে চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে। করোনা আক্রান্ত এলাকাতেও পুলিশকর্মীদেরও ন্যূনতম টহলদারির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে কলকাতা পুলিশের সমস্ত কর্মীরা যাতে মাস্ক, গ্লাভস এবং স্যানিটাইজার পান, তা নিশ্চিত করতে সমস্ত ডিভিশনাল ডিসিদের নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার।

Related Articles

Back to top button
Close