fbpx
কলকাতাবিনোদনহেডলাইন

শারীরিক অবস্থার অবনতি করোনা আক্রান্ত সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: অবস্থার অবনতি হতে শুরু করেছে করোনা আক্রান্ত সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। হাসপাতাল সূত্রে খবর, রক্তচাপ অনিয়মিত তাঁর। শারীরিক অসুস্থতা বাড়ায় আইটিইউ’তে রাখা হয়েছে তাঁকে। চলছে অক্সিজেনও। করোনা-আক্রান্ত হয়ে মঙ্গলবার থেকে মিন্টো পার্ক লাগোয়া একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি রয়েছেন প্রবীণ এই অভিনেতা। সৌমিত্রর বয়স এখন ৮৫ বছর। বয়স ও ক্যান্সার-প্রেশার-সুগার-সিওপিডি-র মতো গুচ্ছ কো-মর্বিডিটির কারণে তাঁকে নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন চিকিৎসকরাও।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় আইটিইউতে ভর্তি করা হয়েছে। অক্সিজেন সাপোর্টে দেওয়া হয়েছে অভিনেতাকে। জানা গেছে, অভিনেতার রক্তচাপ ওঠানামা করছে , কমে গেছে অক্সিজেনের মাত্রা। আজ রক্ত পরীক্ষা ও এক্সরে করা হবে।

হাসপাতালে ভরতি হওয়ার দুদিন পর্যন্ত শ্বাসকষ্টজনিত কোনও সমস্যা তাঁর ছিল না। রক্তে অক্সিজেনের মাত্রাও ছিল স্বাভাবিক। তবে করোনা সংক্রমণের চরিত্র, তাঁর ৮৫ বছর বয়স ও কো-মর্বিডিটির কথা ভেবে সৌমিত্রকে কয়েক বার অক্সিজেন দেওয়া হয়েছিল, যাতে ফুসফুসে কোনও রকম অতিরিক্ত চাপ না-পড়ে। অভিনেতার পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, চলতি মাসের ১-২ তারিখ থেকেই সৌমিত্রর শরীরটা ভালো যাচ্ছিল না। পরে তাঁর জ্বরও এসেছিল। কোভিড টেস্ট করালে সোমবার তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। বয়সের পাশাপাসি ক্যান্সার-প্রেশার-সুগার-সিওপিডি এই সব কো-মর্বিডিটির কারণে ঝুঁকি না-নিয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

‘ফেলুদা’র হাসপাতালে ভরতি হওয়ার খবর পেয়েই মুখ্যমন্ত্রী তাঁর টুইটার হ্যান্ডেলে লেখেন, ‘প্রবীণ অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় কোভিড-নাইনটিন পজিটিভ হয়েছেন জেনে আমি চিন্তিত। তাঁর দ্রুত আরোগ্য ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছি।’

আরও পড়ুন: সমস্ত সরকারি মাদ্রাসা বন্ধ করার ঘোষণা করলেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী

টলিউড সূত্রের খবর, গত ৩০ সেপ্টেম্বর সৌমিত্র একটি ডকু-ফিুচারের জন্য শুটিং করেন ভারতলক্ষ্মী স্টুডিয়োয়। সে দিন বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ শুটিং শুরু হয়। দুপুর পৌনে ১টা নাগাদ ডকু-ফিচার ইউনিটের এক জনকে সৌমিত্র জানান, একটু তাড়াতাড়ি করলে ভালো হয়, তাঁর শরীরটা খারাপ লাগছে। সেই হিসেবে ৩০ সেপ্টেম্বর ছিল সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের করোনা-উপসর্গ ধরা পড়ার প্রথম দিন। চিকিৎসকদের অনেকেরই মতে, এ ক্ষেত্রে ওই দিন যাঁরা প্রবীণ অভিনেতার সংস্পর্শে এসেছিলেন, তাঁদের সবার ১৪ দিনের সেল্ফ আইসোলেশনে থাকা ও করোনা পরীক্ষা করানো উচিত। ওই ডকু-ফিচার ইউনিটে ছিলেন ২৫-৩০ জন। ভারতলক্ষ্মী স্টুডিয়োয় সে দিন লাঞ্চ ব্রেকের পর সৌমিত্রর ইন্টারভিউ নেন পর পর পাঁচ জন। তাঁদের মধ্যে ছিলেন সন্দীপ রায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী ও পরিচালক অতনু ঘোষ। বাকি দু’জন সাংবাদিক। সন্দীপ রায় কিছু দিন আগে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠেন। ১ অক্টোবর থেকে সৌমিত্র বাড়িতেই ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close