fbpx
কলকাতাহেডলাইন

করোনা রোগীর মৃতদেহ পোড়াতে ধাপায় আরও দুই চুল্লি!

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা রোগীর মৃতদেহ পোড়াতে ধাপায় তৈরি হতে চলেছে আরো দুটি নতুন চুল্লি। কাজ শুরু হবে আগামী সপ্তাহ থেকে। আসন্ন পুজোর আগেই অথবা পুজোর ঠিক পরেই ওই চুল্লি তৈরির কাজ শেষ করা হবে। সোমবার পুর সূত্রে এমনটাই জানা গিয়েছে। আসলে যেভাবে প্রতিদিন করোনায় মৃতদের সংখ্যা বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে মৃতদেহগুলি দ্রুত সতকারের প্রয়োজন। তা না হলে একসঙ্গে অনেক মৃতদেহ জমে যাবে। যার ফলে আবারও কোন বেসরকারি সংস্থা কে কাজে লাগিয়ে এই মৃতদেহ পোড়ানো বরাত দিতে হবে। যেমনটা কয়েকদিন আগে টালিগঞ্জ আদি শ্মশানে হয়েছিল। স্থানীয়রা করোনায় মৃত দাবি করলেও পুর-প্রশাসন সম্পূর্ণ তথ্য দেখিয়ে তা বিভিন্ন থানার বেওয়ারিশ লাশ বলে দাবি করে।
এতদিন ধাপার ওই শ্মশানের দুটি চুল্লিতে মূলত বেওয়ারিশ লাশ দাহ করা হত। বর্তমানে করোনা আবহে মৃতদেহের চাপ বাড়তে থাকায় এবং করণা আক্রান্তদের মৃতদেহ সাধারন শ্মশানে দাহ করার ফলে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ভয় ধাপার শ্মশানটিকে করোনার দেহ পোড়ানো কাজে নির্দিষ্ট করা হয়। এরমধ্যে আবার আমফান ঝরে একটি চুল্লি খারাপ হয়ে যাওয়ায় বাকি অন্য চুল্লির উপর চাপ পড়ছে।
কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা এবং সল্টলেকে করোনা আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হলে ধাপার শ্মশানে তাদের শেষকৃত্য করা হয়। কিন্তু একটি চুল্লি খারাপ হয়ে যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই মৃতদেহের চাপ বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রীও সমস্যার কথা গুরুত্ব দিয়ে নতুন চুল্লি তৈরি ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এর পরেই পুর সূত্রে খবর, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে কাজ শুরু হবে নতুন দুটি চুল্লি বসানোর। সেই কাজ শেষ হবে পুজো একেবারেই আগে আর নয় তো পুজো শেষ হওয়ার পর দিয়েই।

Related Articles

Back to top button
Close