fbpx
অন্যান্যঅফবিটগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারের জন্য নিজের দেহে পরীক্ষার জন্য সম্মতি দিলেন কাঁথির যুবক 

মিলন পণ্ডা, কাঁথি, (পূর্ব মেদিনীপুর): মারণ করোনা ভাইরাস গোটা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে। বিশ্ব অর্থনীতি তলানিতে এসে ঠেকেছে। এখনও পর্যন্ত এই ভাইরাস সংক্রমণ দূর করার জন্য কোনও ভ্যাকসিন ও ঔষুধ অবিস্কার হয়নি। তা আবিষ্কারের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন গবেষকরা। মারণ করোনা ভাইরাস  ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ক্ষেত্রে, নিজের দেহে পরীক্ষার জন্য স্বেচ্ছায় সম্মতি দিলেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি শহরের যুবক কৌশিক পাল। একটি ইমেল বার্তা পাঠিয়েছেন তিনি ‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ’ এর দিল্লির ভি রামালিঙ্গস্বামী ভবনে।

কাঁথি শহরে ব্রাহ্মতলার কাছে পোশাকের ব্যবসা ও রেস্তোরাঁ রয়েছে কৌশিক বাবুর।গত ১১ জুন  ‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ’ এর দিল্লির ভি রামালিঙ্গস্বামী ভবনে নিজের দেহে পরীক্ষা জন্য জানিয়ে ইমেল করে বার্তা পাঠিয়েছেন। সেই আবেদন লিপিবদ্ধ করা হয়ে গেছে বলে জানাগিয়েছে। এই ঘটনার জানাজানি হওয়ার পরই যুবকের আত্মীয় ও বন্ধুমহল থেকে অভিনন্দন আসতে শুরু হয়েছে।

এমন ভাবনার প্রসঙ্গে কৌশিক জানান শুধু ভারত নয়, সারা বিশ্বকে করোনা ভাইরাস নাড়িয়ে দিয়েছে। এর থেকে মুক্তির একটাই উপায় ভ্যাকসিন আবিষ্কার। আর তা কোন মতেই আটকানো যাবে না।রিসার্চের ক্ষেত্রে মানবদেহে ভ্যাকসিন প্রয়োগের একটা বড় ভূমিকা রয়েছে। ইতিমধ্যেই অক্সফোর্ড সহ বিভিন্ন রিসার্চ কেন্দ্রে ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য স্বেচ্ছাসেবী প্রয়োজন বলে জানতে পেরেছিলাম। তাই  ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চে আবেদন করলাম। মানবকল্যাণে নিজের অবদান রেখে যেতে পারলে বেশ ভালো লাগবে।কৌশিকের এমন ভাবনায় পাশে রয়েছেন স্ত্রীও। বাবা-মা ও ভাই প্রথমে কিছুটা সংকোচ বোধ করলেও, পরে এই ভাবনার সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন।

এই ঘটনার জানাজানি হওয়ার পরই গর্বিত গোটা পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথিবাসী। কাঁথির বাসিন্দাদের দাবি করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ক্ষেত্রে কাঁথির এই সাহসী যুবকের কোনও অবদান থাকলে, সেটা হবে এই শহরের ক্ষেত্রে একটা গৌরবের বিষয়।কৌশিকের সাহসিকতা দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক অভিনন্দন আসতে শুরু হয়েছে।শুধু তাই নয় সোশ্যাল মিডিয়ায় একেবারে শোরগোল পড়ে গেছে।

Related Articles

Back to top button
Close