fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মুর্শিদাবাদে একদিনে ৪ করোনা আক্রান্তের হদিস, সিল করা হল এলাকা 

কৌশিক অধিকারী, জঙ্গিপুর: অরেঞ্জ জোন অবস্থানে ছিল মুর্শিদাবাদ। রবিবার রাত অবধি মুর্শিদাবাদে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল সরকারি ভাবে একজন। কিন্তু রবিবার রাতেই সেই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৫। এক ধাক্কায় আরও চার জন করোনা আক্রান্তের হদিস মিলল মুর্শিদাবাদে। মুর্শিদাবাদ জেলার জঙ্গিপুর মহকুমা এলাকায় চারজন দেহে মিলল কোভিড -১৯ ভাইরাস। তিনজন সুতি থানা এলাকার বাসিন্দা, একজন জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের নার্সিং স্টাফ বলে জানা গিয়েছে।

সুতির বাসিন্দারা কয়েকদিন আগেই দিল্লি থেকে ফেরত আসে বলে জানা গেছে। এবং অপরজন রঘুনাথগঞ্জ থানার বাসিন্দা তিনি পেশায় স্বাস্থ্য কর্মী। ইতিমধ্যেই আক্রান্ত চারজনকে বহরমপুর মাতৃসদন কোভিড হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে চিকিৎসা করার জন্য এবং তাদের সংস্পর্শে থাকা দশজনকে ইতিমধ্যেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এক ধাক্কায় চার জনের শরীরে সংক্রমণে হদিস মিলতেই নড়েচড়ে বসেছে মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসন তবে এই বিষয়ে এখনও প্রশাসনের কোনও বিবৃতি পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে সোমবার সকালে সুতিতে ৩ জনের করোনা পজিটিভ হওয়া মাত্রই, বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। বিভিন্ন এলাকার রাস্তায় ব্যারিকেট, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে গ্রাম থেকে যাওয়া আসার সমস্ত রাস্তা।

প্রশাসন সুত্রে খবর যে এলাকায় করোনা আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া যায় সেই এলাকা রাতারাতি ঘিরে ফেলতে হবে পুলিশকে। পাশাপাশি রঘুনাথগঞ্জে নার্সিং স্টাফের বাড়ির এলাকায় জঙ্গিপুর পুরসভার পক্ষ থেকে জীবাণুমুক্তকরণের কাজ করা হয়। বাঁশের ব্যারিকেট করে সিল করে দেওয়া হয় এলাকা। বহিরাগত কাউকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এক ধাক্কায় চার জনের শরীরে কোভিড-১৯ সংক্রমণ মিলতেই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন।

অন্যদিকে সোমবার জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে পরিদর্শন যান জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রশান্ত বিশ্বাস। প্রশান্ত বিশ্বাস ক্যামেরার সামনে কোনও মুখ না খুললেও তিনি চলে যাওয়ার পর জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের সুপার ডাঃ সায়ন কুমার দাসকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন নার্সিং স্টাফরা।

নার্সিং স্টাফদের অভিযোগ, ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাস চিকিৎসা করতে গিয়ে একজন নার্সিং স্টাফের দেহে কোভিড-১৯ সংক্রমণ মিলেছে তারপর নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। কিন্তু কোনও পর্যাপ্ত পরিমাণে পিপিই ইউনিট কিট, N95 মাস্ক সহ চিকিৎসা পরিকাঠামো গত কোনও জিনিসের সরবরাহ নেই ফলে আতঙ্কের মধ্যে দিয়ে কাজ করতে হচ্ছে নার্সিং স্টাফদের। সরকারি জিনিস সরবরাহের দাবি তুলেই সোমবার এই বিক্ষোভ দেখানো হয়।

জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের সুপার ডাঃ সায়ন দাস জানান, চারজনের দেহে কোভিড-১৯ সংক্রমণ মিলেছে তাদেরকে চিকিৎসা জন্য কোরেন্টাইনে রাখা হয়েছে। পরিস্থিতির উপর নজর রাখা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close