fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

উপসর্গহীন আক্রান্তদের নিয়ে চিন্তিত সিঙ্গাপুর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সিঙ্গাপুরের করোনাভাইরাসে নতুন করে আক্রান্তদের ৫০ শতাংশই উপসর্গবিহীন। একদিকে নতুন করে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা যখন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে, তখন এই উপসর্গবিহীনরা চিন্তায় ফেলছে সরকারকে। এমনই তথ্য জানিয়েছেন করোনা মোকাবিলায় গঠিত সিঙ্গাপুরের টাস্কফোর্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা লরেন্স ওং।

তিনি বলেছেন, আমাদের অভিজ্ঞতায় দেখা যায়, উপসর্গযুক্ত একজন রোগীর সঙ্গে উপসর্গবিহীন রোগীও একজন পাওয়া যাচ্ছে। মূলত এ কারণেই আমাদের সবকিছু পুনরায় চালু করার পরিকল্পনাগুলো নিয়ে অত্যন্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে হচ্ছে।’ দুই মাস লকডাউনের পর গত সপ্তাহে কিছু স্কুল এবং ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান খুলে দেয় সিঙ্গাপুর। লকডাউন শিথিল করা হলেও এখনও অনেকে অফিসের কাজ বাড়ি থেকেই করছেন। ওং বলেন, আমরা কেন দ্রুত অর্থনীতি চালু করছি না, সেব্যাপারে লোকজন কথা বলছে।’ সেইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমাদের আরও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। এখনও অ্যাসিম্পটোমেটিক রোগী রয়েছে; যারা কমিউনিটিতে ছড়িয়ে পড়েছেন। কিন্তু আমরা তাদের শনাক্ত করতে পারছি না।’

সারাদেশে বর্তমানে কতসংখ্যক মানুষ এই ভাইরাসটিকে নীরবে বহন করছেন সেব্যাপারে সরকারিভাবে কোনও তথ্য জানানো হয়নি। তবে ওং বলেছেন, ‘গত দুই সপ্তাহে দেশে ৬ হাজার ২৯৪ জন সংক্রমিত হয়েছেন; যাদের বেশিরভাগই অভিবাসী শ্রমিক।’ তথ্য বলছে, সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত ৫৭ লক্ষ মানুষের এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ হাজারের বেশি মানুষ।

অন্যদিকে, করোনার উৎপত্তিস্থল চিনেও উপসর্গবিহীন অন্তত ৩০০ রোগী শনাক্ত হয়েছিলেন। শরীরে কোনও উপসর্গ না দেখা দিলেও অন্যদের মাঝে নীরবে এই ভাইরাসটির বিস্তার ঘটিয়েছেন তারা। যদিও কিছু বিশেষজ্ঞ বলছে, অ্যাসিম্পটোমেটিক সংক্রমণ খুবই সাধারণ ঘটনা। কিন্তু বিশ্বের একাধিক দেশে করোনা ভাইরাসের এই অ্যাসিম্পটোমেটিক বাহকরা বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ তৈরি করছে।

Related Articles

Back to top button
Close