fbpx
দেশহেডলাইন

একলাফে কমেছে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃতের সংখ্যা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে একলাফে অনেকটাই কমেছে দৈনিক সংক্রমণ। রবিবারই সরকারিভাবে ঘোষণা করেছে কেন্দ্রের কোভিড সংক্রান্ত টাস্ক ফোর্স। তাঁদের দাবি, এখন নিয়মিত নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কমতে থাকবে। বাস্তবও সেকথাই বলছে। দেখা যাচ্ছে, রবিবার দেশে নতুন করোনা সংক্রমণের সংখ্যাটা আরও খানিকটা কমেছে।কমেছে দৈনিক মৃতের সংখ্যাও।তবে, দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও সার্বিকভাবে তা ৭৫ লক্ষের গণ্ডি পেরিয়ে গিয়েছে।

সোমবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫৫ হাজার ৭২২ জন করোনা  আক্রান্ত হয়েছেন। যা আগের দিনের থেকে প্রায় ৬ হাজার কম। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৫ লক্ষ ৫০ হাজার ২৭৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃতের সংখ্যাটা অনেকটা কমেছে। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৫৭৯ জনের। ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১ লক্ষ ১৪ হাজার ৬১০ জন।

আরও স্বস্তির খবর হল, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন প্রায় ৭৭ হাজার মানুষ। অর্থাৎ আক্রান্তের তুলনায় অনেকটা বেশি সুস্থ রোগীর সংখ্যা। এই মুহূর্তে দেশে মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা ৬৬ লক্ষ ৬৩ হাজার ৬০৮ জন। সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৭ লক্ষ ৭২ হাজার ৫৫ জন। যা আগের দিনের তুলনায় অনেকটা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষার সংখ্যাটাও অবশ্য অনেকটা কমেছে।

আরও পড়ুন: অসম-মিজোরাম সীমান্তে তুমুল সংঘর্ষ, বৈঠকের ডাক কেন্দ্রের

ভারতের কোভিড পরিসংখ্যানের শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। দেশে কোভিড সংক্রমণের প্রাথমিক পর্যায় থেকেই মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত এবং কোভিড সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। মুম্বই এবং পুণে এই দুই জায়গা হল মহারাষ্ট্রের অন্যতম করোনা হটস্পট। এরপর দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। তৃতীয় স্থানে রয়েছে কর্নাটক। চতুর্থ স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। পঞ্চম স্থানে রয়েছে উত্তরপ্রদেশ এবং ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে রাজধানী শহর দিল্লি। মূলত এই ৬ রাজ্যেই দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বিশ্বের কোভিড পরিসংখ্যানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। প্রথম ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে যথাক্রমে আমেরিকা ও ব্রাজিল।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close