fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

ফের রেকর্ড সংক্রমণ, দেশে একদিনেই করোনার কবলে প্রায় ৭৭ হাজার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কোনও কিছুতেই বাধ মানছে না সংকঙ্ক্রমণ। রুদ্ধশ্বাস গতিতে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনার কবলে পড়েছেন ৭৭ হাজারেরও বেশি মানুষ। যা কিনা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর জেরে দেশে মোট করোনার প্রকোপও বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন পর্যন্ত দেশজুড়ে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ লক্ষ ৮৭ হাজারের বেশি মানুষ।

শুক্রবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের  দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৭৭ হাজার ২৬৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যা গতকালের থেকে প্রায় সাড়ে ২ হাজার বেশি। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩ লক্ষ ৮৭ হাজার ৫০১ জন। পরিসংখ্যান বলছে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থও হয়েছেন ৬৪ হাজারের বেশি মানুষ। ফলে দেশে মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২৫ লক্ষ ৮৩ হাজার ৯৪৮ জন। তবে দেশে এখনও প্রায় ৭ লক্ষ ৪৩ হাজার ২৩ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন।

সংক্রমণের নিরিখে এখনও তৃতীয় স্থানে থাকলেও, প্রথম এবং দ্বিতীয় স্থানে থাকা আমেরিকা এবং ব্রাজিলের থেকে দেশের দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধির গতি এখন অনেকটাই বেশি। তাছাড়া মোট সংক্রমণের নিরিখেও ব্রাজিলকে প্রায় ছুঁয়ে ফেলার মুখে ভারত। বৃহস্পতিবারের মৃতের সংখ্যাটাও বেশ উদ্বেগজনক। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৫৭ জনের। ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫১ হাজার ৫২৯ জন।

আরও পড়ুন: জনসংখ্যা ৫০, গ্রেট আন্দামানের আদিবাসীদের ১০জন কোভিড পজিটিভ, উদ্বেগ

আইসিএমআর জানিয়েছে, ২৬ আগস্ট পর্যন্ত দেশে ৩ কোটি ৮৫ লক্ষ ৭৬ হাজার ৫১০টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। বুধবার দেশের ১,৫৫০টি গবেষণাগারে ৯,২৪,৯৯৮টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এদিকে, স্বাস্থ্যমন্ত্রক এক নির্দেশিকায় জানিয়েছে, সমস্ত করোনা রোগীর ভর্তির সময়েই এখন থেকে যক্ষ্মার পরীক্ষা করাতে হবে। যক্ষ্মা ধরা পড়লে করোনা চিকিত্‍সার সঙ্গেই যক্ষ্মার চিকিত্‍সাও চালু করতে হবে। এছাড়াও করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি হলেই সুগার পরীক্ষাও করতে হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, রাজধানী দিল্লিতে ৯০ শতাংশ আক্রান্ত সুস্থ হয়েছেন। তামিলনাড়ুতে ৮৫ শতাংশ, বিহারে ৮৩‌.‌৮০ শতাংশ, গুজরাটে ৮০.‌২০ শতাংশ সুস্থ হয়েছেন। রাজস্থান, অসম ও পশ্চিমবঙ্গেও প্রায় ৮০ শতাংশ সুস্থ হয়েছেন। রাজধানী দিল্লিতে সংক্রমণের গতি মাঝে কিছুটা কমার পর ফের নতুন করে বাড়তে শুরু করেছে। গত মঙ্গলবার ১,৫৪৪ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন, বুধবারে ১,৬৯৩ জন আক্রান্ত হন। অন্যদিকে মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা ধারাবাহিক ভাবে বাড়ছে। ওই রাজ্যগুলিতে করোনা পরীক্ষা বৃদ্ধির পাশাপাশি কনটেনমেন্ট জোনে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।‌

 

Related Articles

Back to top button
Close