fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

দৈনিক সংক্রমণে ফের রেকর্ড ভারতে, ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৯৬,৫৫১

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কদৈনিক এক লক্ষ সংক্রমণের দিকে এগোচ্ছে ভারত। গত ২৪ ঘণ্টায় ফের দৈনিক সংক্রমণের রেকর্ড গড়েছে দেশ। একদিনেই এই মারণ ভাইরাসের কবল পড়েছেন প্রায় সাড়ে ৯৬ হাজার মানুষ। যা শুধু ভারতেরই নয়, গোটা বিশ্বের নিরিখে রেকর্ড। আমেরিকা এবং ব্রাজিল দুই দেশের থেকেই ভারতের দৈনিক সংক্রমণ কয়েক গুণ বেশি। দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাতেও এই মুহূর্তে ভারত বিশ্বে প্রথম স্থানে।

শুক্রবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৯৬ হাজার ৫৫১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যা গতকালের থেকে সামান্য বেশি। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৫ লক্ষ ৬২ হাজার ৪১৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ২০৯ জনের। যা বিশ্বের অন্যান্য দেশের থেকে অনেক বেশি। ফলে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭৬ হাজার ২৭১ জন। মোট মৃতের সংখ্যার নিরিখে এই মুহূর্তে বিশ্বে তৃতীয় ভারত। তবে মৃতের সংখ্যাটা বাড়লেও দেশের মৃত্যুহার এখনও কমের দিকেই।

আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যায় ফের রেকর্ড করলেও সুস্থতার সংখ্যাটা খানিকটা স্বস্তি দিচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, গত ২৯ দিনে দেশে দ্বিগুণ হয়েছে করোনাজয়ীর সংখ্যা। পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার কবল থেকে মুক্তি পেয়েছেন ৬৯ হাজারের বেশি মানুষ। ফলে দেশে মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ লক্ষ ৪২ হাজার ৬৬৪ জনে।

আরও পড়ুন: কুলভূষণ যাদব মামলায় ভারতের তরফে পাঠানো আইনজীবী রাখার প্রস্তাব ফেরাল পাক সরকার

ভারতের কোভিড পরিসংখ্যানের শীর্ষে থাকা মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১০ লক্ষ। এখনও পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৯,৬৭,৩৪৯ জন। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ২৭,৭৮৭ জনের। সুস্থ হয়েছে ৬,৮৬,৪৬২ জন। মহারাষ্ট্রে এখন অ্যাকটিভ কেস ২,৫৩,১০০। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। সেখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫,২৭,৫১২। মৃত্যু হয়েছে ৪৬৩৪ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪,২৫,৬০৭ জন। অন্ধ্রপ্রদেশে অ্যাকটিভ কেস ৯৭,২৭১। তৃতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। এখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪,৮০,৫২৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮০৯০ জনের। সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪,২৩,২৩১। তামিলনাড়ুতে অ্যাকটিভ কেস ৪৯,২০৩। চতুর্থ স্থানে রয়েছে কর্নাটক। এখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪,২১,৭৩০। মৃত্যু হয়েছে ৬৮০৮ জনের। সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়েছে ৩,১৫,৪৩৩ জন। কর্ণাটকে অ্যাকটিভ কেস ৯৯,৪৮৯। পঞ্চম স্থানে রয়েছে উত্তরপ্রদেশ। এখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২,৮৫,০৪১। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৪১১২ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২,১৬,৯০১ জন। উত্তরপ্রদেশে অ্যাকটিভ কেস ৬৪,০২৮। ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে দিল্লি। রাজধানী শহরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২,০১,১৭৪। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৪৬৩৮ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১,৭২,৭৬৩ জন। দিল্লিতে অ্যাকটিভ কেস ২৩,৭৭৩।

 

Related Articles

Back to top button
Close