fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুর্নীতি! পরীক্ষা সংক্রান্ত দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি শিলিগুড়ি কলেজের অধ্যাপককে

কৃষ্ণা দাস, শিলিগুড়ি: দুর্নীতির অভিযোগে শিলিগুড়ি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক অমিতাভ কাঞ্জিলালকে পরীক্ষা সংক্রান্ত সমস্ত বিষয় থেকে সরিয়ে দেওয়া হল। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সেই নির্দেশ পাঠানো হয়েছে শিলিগুড়ি কলেজে। পাশাপাশি কলেজের অধ্যাপকের নামে মাটিগাড়া থানায় এফআইআর করা হল উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে। অভিযোগকারী ছাত্রী নীশা পাশওয়ান শিলিগুড়ি কলেজে অধ্যাপক অমিতাভ কাঞ্জিলালের নাম দিয়ে লিখিত অভিযোগ জানানোর ভিত্তিতে। মাটিগাড়া থানায় অধ্যাপকের নাম দিয়েই এফআইআরও করা হয়েছে বলে জানান উত্তর বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দিলীপ সরকার।

শিলিগুড়ি কলেজের অভিযুক্ত অধ্যাপককে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীতে শনিবার একদিকে শিলিগুড়ি কলেজে অবস্থান বিক্ষোভ করে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। অন্যদিকে অভিযুক্ত অধ্যাপককে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে দার্জিলিং জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। উপাচার্য উপস্থিত না থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দিলীপ সরকারের হাতে স্মারকলিপি তুলে দেওয়া হল। দিলীপ বাবু জানান, অভিযোগকারী ছাত্রী নীশা পাশওয়ান অমিতাভ কাঞ্জিলালের নাম দিয়ে শিলিগুড়ি কলেজে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে। শিলিগুড়ি কলেজ সেই চিঠিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফরোয়ার্ড করে।

উপাচার্যের নির্দেশ মতো সেই অভিযোগের ভিত্তিতে থানায় এফআইআর করা হয়েছে। ইন্ডিয়ান পিনাল কোডের যে যে ধারা প্রযোজ্য তা প্রয়োগ করে আইন বহির্ভূত কাজ যারা করছেন তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন পুলিশে প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি শিলিগুড়ি কলেজকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আগামীকাল জেইই ও নীটের পরীক্ষা রয়েছে সেই পরীক্ষা সহ অন্যান্য সমস্ত পরীক্ষা সংক্রান্ত বিষয় থেকে তাকে যাতে সরিয়ে দেওয়া হয়। শিলিগুড়ি কলেজ নির্দেশ পাওয়া মাত্রই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সেই সঙ্গে অডিও ক্লিপ অনুযায়ী অধ্যাপকের এই কাজে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধেও অনেকের জড়িত থাকার বিষয় উঠে এসেছে সেই বিষয় নিয়ে এখনও কোনো কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয় নি তা রেজিস্ট্রারের বক্তব্য স্পষ্ট। রেজিস্ট্রারের বক্তব্য অভিযুক্ত অধ্যাপককে পুলিশ চাপ দিলেই কারা জড়িত তা বেড়িয়ে আসবে তখন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ যা ব্যবস্থা নেওয়ার পুলিশ প্রশাসন নেবে । বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে কোনো পদক্ষেপ গ্রহনের ব্যাপারে তিনি জানান উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কন্ট্রোলারের সাথে কথা বলেছেন। নিশ্চয়ই কোনো না কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রঞ্জন সরকার বলেন আমরা চাই অবিলম্বে অভিযুক্তকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক। শিক্ষাঙ্গনকে যারা কলুষিত করার চেষ্টা করে তাদের সরকারি চাকরি করার কোনো অধিকার নেই। যতদিন না অভিযুক্ত অধ্যাপকের শাস্তি হচ্ছে ততদিন তৃণমূল ছাত্র পরিষদ শিলিগুড়ির প্রতিটি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাবে।

Related Articles

Back to top button
Close