fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

একাধিক দুর্নীতির অভিযোগে কাঠগড়ায় তৃণমূল, উওেজনা তমলুকে

মিলন পণ্ডা, তমলুক: আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের স্বজনপোষন নিয়ে তৃণমূল নেতাদের নামে পোষ্টার পড়লো পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকের পদমপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। এই ঘটনার পর গোটা এলাকায় রাজনৈতিক ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে। যদিও শাসক দলের নেতারা বিজেপির চক্রান্ত বলে দাবি করেছেন। পুরোপুরি অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় তমলুক পদুমপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় আমফানে ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষতিগ্রস্ত তালিকা নিয়ে স্বজনপোষন হয়েছে বলে ভুরি ভুরি অভিযোগ উঠে এলাকার একাধিক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে।ওই গ্রামের গ্রাম পঞ্চায়েতের জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ সোমনাথ বেরা, পঞ্চায়েত প্রধান রিঙ্কু মাইতি সহ একাধিক নেতার নামে স্বজনপোষন করেছে বলে পোষ্টার পড়ে। এদিন এলাকায় জয়কৃষ্ণপুর, মিরিকপুর, কালিকাপুর সহ একাধিক গ্রামে যুব তৃণমূল ও তৃণমূল বাঁচাও কমিটির নামে পোষ্টার দেখতে পায় স্থানীয় বাসিন্দারা। পোষ্টারের লেখা রয়েছে যাদের পাকার বাড়ি আছে তাদের ক্ষতিগ্রস্তদের নাম রয়েছে। প্রকৃত গরিব মানুষকে ক্ষতিগ্রস্ত তালিকা থেকে বঞ্চিত করেছে ওই তৃণমূল নেতারা। শুধু তাই নয় কোন নেতা কত টাকা নিয়েছে,টাকা নিয়ে কি কি সুবিধা পাইয়ে দিয়েছে ওই পোষ্টারে উল্লেখ্য রয়েছে।

যুব তৃণমূলের ব্লক সভাপতি অর্ণব চক্রবর্তী বলেন ব্যানার দেওয়ার ঘটনায় আমাদের সংগঠনের কেউ যুক্ত নয়। বিজেপির লোকেরা চক্রান্ত করে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান রিঙ্কু মাইতি বলেন আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের প্রাথমিক তালিকায় কিছু ভুলত্রুটি ছিল। নতুন করে সংশোধিত তালিকা তৈরি করা হয়েছে। কেউ চক্রান্ত করে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ সোমনাথ বেরা বলেন আমফানে ক্ষতিগ্রস্তের তালিকা পঞ্চায়েত তৈরি করেছে। ওই ঘটনার সঙ্গে আমার কোনও যোগ নেই। আমি নিশ্চিত বিজেপির লোকেরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে।বিজেপির তমলুক সাংগঠনিক জেলার সভাপতি নবারুণ নায়েক বলেন কে কত বড় চোর তানিয়ে নিজেদের মধ্যে খেয়াখেয়ি শুরু হয়েছে। আগামী দিনে নিজেরাই মারামারি করবে। এই পোষ্টারের রাজনীতি বিজেপি সমর্থন করেনা। আমাদের দলের কেউ যুক্ত নয়।

Related Articles

Back to top button
Close