fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি, প্রতিবাদ করায় তৃণমূলের হাতে হেনস্তা গ্রামবাসী, আহত ৬ জন

শ্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা:  আমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ করে আসছেন বিরোধীরা। অধিকাংশ জায়গাতেই রাজ্য শাসকদলের বিরুদ্ধে আমফানের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ গ্রামবাসীদের। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে এই অভিযোগেই গ্রামে গ্রামে সংঘর্ষে জড়াচ্ছে গ্রামবাসী বনাম প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতা নেত্রীরা। দূর্নীতি রুখতে মুখ্যমন্ত্রী কড়া ব্যবস্থা নিলেও, এখনও মুখ্যমন্ত্রীর হঁশিয়ারিকে পাত্তা না দিয়ে চলছে ত্রান বন্টন নিয়ে দূর্নীতি। সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল বসিরহাট মহকুমার হিঙ্গলগঞ্জ থানার দুলদুলি পঞ্চায়েতের কোঠাবাড়ী গ্রামের ১৪৯ নম্বর বুথ সংলগ্ন এলাকায়। জানা গিয়েছে বেশ কিছু দিন ধরে ওই এলাকায় আমাফানের ত্রাণ বন্টন নিয়ে দূর্নীতির অভিযোগ উঠছিল, প্রতিবাদ করায় ওই এলাকার তৃণমূল নেতা গ্রামবাসীদের ওপর চড়াও হয়,ওই নেতা দলবল নিয়ে এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গ্রামবাসীদের মারধর শুরু করে। এই ঘটনায় দু’পক্ষের কমপক্ষে ৬ জন জখম হয়েছে। তাদের মধ্যে বিমল মন্ডল,রমেন গায়েনের মাথায় ধারালো অস্ত্র কোপে গুরুতর ভাবে জখম হওয়ায় তাদেরকে বসিরহাট জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন: সীমান্তে গ্যাস সিলিন্ডারের মধ্যে ইয়াবা ট্যাবলেট পাচারের চেষ্টা, গ্রেফতার মহিলা পাচারকারী

জানা গিয়েছে, আমফানের টাকা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছেন গ্রামবাসীরা। তাঁরা জানান, ঘূর্ণিঝড়ে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত যাঁরা, তাঁদের কেউ ক্ষতিপূরণের টাকা পাননি। টাকা ঢুকেছে এলাকার শাসকদলের নেতা-কর্মীদের অ্যাকাউন্টে। সোমবার সন্ধেবেলা এই ঘটনারই প্রতিবাদ জানাতে পঞ্চায়েতের মেম্বার মমতা সর্দার মুন্ডা ও তাঁর স্বামী আশুতোষ মুন্ডার বাড়ি গিয়েছিলেন গ্রামের মানুষ। অভিযোগ তখনই এলাকার তৃণমূল নেতৃত্ব তাঁদের উপর চড়াও হয়। শুরু হয়ে যায় দু’পক্ষের সংঘর্ষ। ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর জখম হয়েছেন বিমল মণ্ডল, রমেন গায়েন নামে দুই গ্রামবাসী। তাঁদের বসিরহাট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষে আহত হয়েছেন আরও ছ’জন। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে। এই ঘটনায় হিঙ্গলগঞ্জ থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।এর পাশাপাশি আমফানের টাকা নিয়ে একাধিক অভিযোগ উঠে আসছে এই সুন্দরবন এলাকা থেকে।

Related Articles

Back to top button
Close