fbpx
কলকাতাহেডলাইন

হিডকোর উদ্যোগে দেশের বৃহত্তম ইলেকট্রিক গাড়ির চার্জিং স্টেশন তৈরি হচ্ছে নিউটাউনে

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: আনলক – ৪ এ জনজীবন স্বাভাবিক ছন্দে ফেরানোর চেষ্টা চলছে। কিন্তু গণপরিবহনের ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কর্মক্ষেত্রে যাতায়াত করাটা চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। মেট্রো চালু হলেও ই পাস জোগাড় করে সফর করাটাও অনেকটা ভাগ্যের হাতে ছাড়তে হচ্ছে। কারণ বুকিং ফুল থাকলে মেট্রো চড়ার সুযোগ নেই। তাই চাহিদা বাড়ছে চার চাকার গাড়ির, বিশেষ করে ইলেকট্রিক গাড়ির।

 

কারণ এই ধরনের গাড়ির দূষণ যেমন কম, তেমন জ্বালানি খরচও নেই। কিন্তু শহরে ইলেকট্রিক গাড়ির চার্জিং স্টেশন যথেষ্ট নেই। সেই অভাব দূর করতে নিউটাউনে চালু হচ্ছে দেশের বৃহত্তম চার্জিং স্টেশন। নভেম্বর মাসেই চালু হয়ে যাবে এই চার্জিং স্টেশন। একসঙ্গে ২৫ টি গাড়ি চার্জ করা যাবে। হিডকো ও লিথিয়ামের যৌথ উদ্যোগে নিউটাউনের ফিনান্সিয়াল হাবের পাশের জমিতে তৈরি হচ্ছে এই চার্জিং স্টেশন। হিডকোর চেয়ারম্যান দেবাশিস সেন জানিয়েছেন, ‘লিথিয়াম ১৫০ কোটি টাকা এই প্রকল্পের জন্য বিনিয়োগ করছে। ওঁরা ২৫ টি চার্জিং স্টেশন আনছেন। তিনবছরের ১০০০ গাড়ি আনবেন। হয়তো অদূর ভবিষ্যতে ইলেকট্রিক গাড়ি উৎপাদনের জন্য বাংলার কোথাও জমি নিয়ে উৎসাহী হবেন উদ্যোগপতিরা।’

আরও পড়ুন: ফের তালিবান ঘাঁটিতে এয়ার স্ট্রাইক করল আফগানিস্তান, নিহত বহু

বাস্তবিকই তথ্য প্রযুক্তি তালুক ও স্মার্ট সিটিতে চাহিদা বাড়ছে ইলেকট্রিক গাড়ির। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পরিবহণ নিগম বছরের শেষে আরও ৫০ টি ইলেকট্রিক বাস নামাচ্ছেন কলকাতার রাস্তায়। ফলে জরুরি হয়ে পড়েছে নতুন চার্জিং স্টেশন। এই চার্জিং স্টেশনে বিদ্যুৎ সরবরাহ করবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থা। স্লো ও ফাস্ট দুই পদ্ধতিতেই চার্জ করা যাবে। স্লো পদ্ধতিতে গাড়ি চার্জ করতে সময় লাগবে ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা। আর ফাস্ট পদ্ধতিতে ১ ঘণ্টা। পরিবেশবান্ধব ইলেকট্রিক গাড়ি আরও বেশি চলুক চাইছেন পরিবেশবিদরা। তাহলে শহর সবুজ থাকবে, প্রাণভরে নিঃশ্বাস নিতে পারবেন শহরবাসী।

Related Articles

Back to top button
Close