fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সংক্রমণ রুখতে ফের লকডাউনের দাবি রায়গঞ্জ দাবি মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের

শান্তনু চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জ ঃ রায়গঞ্জ শহর ও শহর সংলগ্ন এলাকায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় পুনরায় ১৪ দিনের লকডাউনের দাবি তুললেন রায়গঞ্জের বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত। সংক্রমনে লাগাম টানতে একই দাবিতে জেলাপ্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে রায়গঞ্জ মার্চেন্টস এ্যাসোসিয়েশন। যদি রায়গঞ্জ পুর সভার ভাইস চেয়ারম্যান অরিন্দম সরকার বলেন,” গোটা পরিস্থিতির উপর প্রশাসন নজর রাখছে। তবে এখনই লকডাউনের প্রয়োজনীয়তা নেই। স্বাস্থ বিধি মেনে চলেই সংক্রমণ রুখতে হবে। অন্যদিকে দুই ব্যবসায়ী কোভিড পজিটিভ হওয়ায় বুধবার থেকে ১৪ দিনের জন্য রায়গঞ্জের মোহনবাটী বাজার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এবিষয়ে মাইকে প্রচার ও চালানো হয় এদিন

উল্লেখ্য আনলক পর্বে উত্তর দিনাজপুর জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যে রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজে ভি আর ডি এল ল্যাবে করোনা টেস্ট শুরু হওয়ায় দ্রুত রিপোর্ট মিলছে। রায়গঞ্জ পৌরসভার দেবীনগর,বিধাননগর,নেতাজীপল্লী,সুদর্শন পুর, কলেজপাড়া সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে করোনা পজিটিভ রোগীর সন্ধান মিলেছে। শহরতলীর চান্দোরেও আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে। সম্প্রতি রায়গঞ্জের মোহনবাটী বাজারের দুই ব্যবসায়ী করোনা আক্রান্ত হওয়ায় তীব্র আতংক ছড়িয়ে পড়ে শহর জুড়ে। তড়িঘড়ি বাজার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে বসেন রায়গঞ্জ মার্চেন্টস এ্যাসোসিয়েশন। মঙ্গলবারের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় বুধবার থেকে চৌদ্দ দিন বন্ধ থাকবে বাজার। অন্যদিকে করোনা আক্রান্তদের ইতিমধ্যেই রায়গঞ্জ কোভিড হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা চলছে। স্বাস্থ দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে আক্রান্ত দের মধ্যে বেশীরভাগই উপসর্গহীন। কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসার পর বেশীর ভাগই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। অন্যদিকে রায়গঞ্জ মার্চেন্টস এ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক অতনু বন্ধু লাহিড়ী বলেন,” পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে মালদা ও ডালখোলায় লকডাউন শুরু হয়েছে। রায়গঞ্জের পরিস্থিতি খারাপের দিকে। এই পরিস্থিতিতে সংক্রমণে লাগাম টানতে রায়গঞ্জেও লকডাউন প্রয়োজন। এবিষয়ে জেলাপ্রশাসনের কাছে আবেদন জানাবো। সংক্রমণ রুখতে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে মোহনবাটী বাজার। রায়গঞ্জে লকডাউনের দাবীতে জেলাশাসকের কাছে চিঠি পাঠালেন বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত। যদিও রায়গঞ্জ পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান অরিন্দম সরকার বলেন,” গোটা বিষয়টি নিয়ে প্রশাসন অবহিত রয়েছে। তবে এখনই লকডাউনের প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। নির্দিষ্ট স্বাস্থবিধি মেনে চলাটা খুব প্রয়োজন।

Related Articles

Back to top button
Close