fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউন দিনহাটা, অতন্ত্র প্রহরী পুলিশ

নিজস্ব সংবাদদাতা দিনহাটা: করোনা সংক্রমনের সংখ্যা গত কয়েক দিন ধরে বেড়ে চলছে দিনহাটা পুরসভা এলাকা ও দুই ব্লক কেেই। ইতিমধ্যে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন। পাশাপাশি দিনহাটায় বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার পুর কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠক করে পুরো এলাকাকে রক্ষা করতে লকডাউনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সেই অনুযায়ী শুক্রবার বিকেল থেকেই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ক্লাব ও সংগঠনের ডাকে শুরু হয় দিনহাটা শহরের লকডাউন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা হতেই শনিবার সকাল থেকেই দিনহাটা শহরের ব্যস্ততম পাঁচ মাথার মোড় সহ বিভিন্ন এলাকায় কড়া পুলিশি প্রহরায় কার্যত শুনশান হয়ে পড়ল শহর দিনহাটা। পাশাপাশি দিনহাটা ২ ব্লকের বিভিন্ন স্থানে ওসি হেমন্ত শর্মা নেতৃত্বে বিভিন্ন এলাকায় চলে টহলদারি। শনিবার সকাল থেকে শহরের পাঁচ মাথার মোড় সহ বিভিন্ন স্থানে কোন কারন ছাড়াই যারা মোটর বাইক কিংবা টোটো নিয়ে বাইরে বের হয় তাদেরকে আটকে দেয় পুলিশ। এদিন পুলিশ কিছুটা কঠোর হতেই শহরের রাস্তাঘাট অনেকটাই ফাঁকা হয়ে যায়। পাশাপাশি তাদেরকে করোনা মোকাবিলায় ঘরে থাকার আবেদন জানানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। পুলিশের এই ভূমিকার প্রশংসা করেন অনেকেই।

একদিকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা অন্যদিকে দিনহাটায় বিভিন্ন ক্লাব ও সংগঠনের পক্ষ থেকে শুক্রবার বিকেল থেকেই শুরু হয় লকডাউন। ক্লাব সংগঠন গুলির পক্ষ থেকে রাস্তায় নেমে সাধারণ মানুষকে সচেতন করা হয়। এমনকি ব্যবসায়ীরা যারা নিজেদের ইচ্ছামত দোকান খোলা রাখার চেষ্টা করে তাদেরকেও সতর্ক করে দেওয়া হয়।

সেই অনুযায়ী পুলিশের পক্ষ থেকেও যেমন নজরদারি বাড়ানো হয় তেমনি পাঁচ মাথার মোড়ে এলাকার কাউন্সিলর গৌরীশংকর মাহেশ্বরী, বিভিন্ন ক্লাব ও সংগঠনের বিশু ধর, বিরাজ দেব, নিখিল সাহা প্রমুখ নিজে দাঁড়িয়ে থেকে পুলিশ প্রশাসনকে নানা ভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন।

প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী এদিন সকাল থেকেই দিনহাটা শহর ও দুই ব্লক কনটেনমেন্ট জোনের আওতায় থাকায় ওষুধের ও রেশনের দোকান ছাড়া অন্যান্য সব রকমের দোকান বন্ধ রয়েছে।দিনহাটা চওড়াহাট বাজারেও এদিন দোকানপাট সবই ছিল বন্ধ। প্রতিদিন যেখানে কয়েক হাজার মানুষের ভিড় জমে এদিন ঠিক উল্টো চিত্র দেখা যায়। সরকারি গাড়ি দু’একটি চললেও বেসরকারি গাড়ি চলেনি।
এই রোগ মোকাবিলায় বিভিন্ন ক্লাব ও সংগঠন যেভাবে এগিয়ে এসে কনটেনমেন্ট জোন এলাকায় লকডাউন কে সফল করে তুলতে পথে নেমেছে এভাবে চলতে থাকলে কিছুটা হলেও রক্ষা করা সম্ভব হবে দিনহাটা কে বলেও উল্লেখ করেন অনেকে।
দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত জানান দিনহাটা পুরসভার কনটেনমেন্ট জোন এলাকায় যাতে কোনভাবেই সাধারণ মানুষ ঘর থেকে না বের হন সেদিকে লক্ষ্য রেখে পুলিশি নজরদারি বাড়ান হয়েছে। বেশকিছু মোটরবাইক ও আটক করা হয়েছে।

দিনহাটা মহকুমা পুলিশ আধিকারিক মানবেন্দ্র দাস বলেন শহরের পাশাপাশি দিনহাটা দুই ব্লকেও কনটেনমেন্ট জোন এলাকায় অযথা মানুষের চলাচল ও ঘোরাঘুরি বন্ধ করতে পুলিশ বিশেষভাবে নজর রেখেছে

Related Articles

Back to top button
Close