fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

পড়ে রইলেন করোনা আক্রান্ত পুলিশ! কলকাতা মেডিক্যালে নজিরবিহীন বিক্ষোভ পুলিশকর্মীদের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: কোভিড ওয়ারিয়র হয়েও সাধারণ মানুষের মত রোগী ভর্তিতে হেনস্থা হতে হচ্ছে পুলিশকর্মীদেরও। আপদে-বিপদে চিকিৎসকদের বাঁচিয়েও যেখানে তাঁদেরই এই হেনস্থা, সেখানে সাধারণ মানুষের যে কি পরিস্থিতি হতে পারে, তা সহজেই অনুমেয়। হাসপাতালে পুলিশ ফাঁড়ির মধ্যে এক পুলিশ কর্মী করোনা আক্রান্ত হবার পরেও তাকে ভর্তি না করে দু’ঘণ্টা ফেলে রাখলেন চিকিৎসকরা। শেষ পর্যন্ত বিরক্ত হয়ে পুলিশকর্মীরাই বিক্ষোভ শুরু করলে তাকে ভর্তি নেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত প্রত্যেক হাসপাতালের ভিতর সেই হাসপাতাল যে এলাকার মধ্যে পড়ে, তার পুলিশ ফাঁড়ি বা আউটপোস্ট করা থাকে। যাতে প্রয়োজন হলে সেখানকার পুলিশকর্মীরা প্রাথমিকভাবে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সামাল দিতে পারেন বা থানায় যোগাযোগ করে আরো পুলিশকর্মী ডাকতে পারেন। এভাবেই বউবাজার থানারও আউটপোস্ট রয়েছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে।

সেখানকারই বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদেরই একজন পুলিশকর্মীকে করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর এদিন হাসপাতালে ভর্তি করাতে নিয়ে যান সহকর্মীরা। কিন্তু ঘন্টা দু’য়েকেরও বেশি সময় ধরে তাকে ফেলে রাখায় ধৈর্য্যের বাঁধ ভাঙে পুলিশকর্মীদের। ফলে হাসপাতালের ভিতরে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে পুলিশকর্মীদের নজিরবিহীন বিক্ষোভ প্রত্যক্ষ করেন অন্যান্য রোগীর পরিজনরা।

পুলিশকর্মীরা জানিয়েছেন, এর আগে আরো একজন পুলিশকর্মীকে ভর্তি করাতে গেলেও একই অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হতে হয়েছিল তাঁদের। কোভিড ওয়ারিয়র হয়েও এই ব্যবহার কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। ইচ্ছাকৃত ভাবে হেনস্থা করা হয়েছে। যদিও হাসপাতালের দাবি, রোগীর চাপে হাসপাতালের বেড সত্যিই খালি ছিল না। একজন রোগীকে সরিয়ে জায়গা করতে কিছুটা সময় লেগে যাওয়ায় অসন্তুষ্ট হন পুলিশকর্মীরা। তবে শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি সামাল দেওয়া গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close