fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণবিজ্ঞান-প্রযুক্তিহেডলাইন

রূপ পাল্টে আজীবন থাকতে পারে করোনা, মত ব্রিটিশ বিজ্ঞানী স্যার মার্ক ওয়ালপোর্টের

লন্ডন,(সংবাদ সংস্থা): লকডাউন যতই চলুক না কেন? কোভিড-১৯’কে সঙ্গে নিয়েই হয়ত বাঁচতে হবে প্রাণীকূলকে। কোনও দিনই পৃথিবী থেকে তাড়ানো যাবেনা করোনাকে। কোভিড-১৯ সম্পর্কে এমনই হতাশার কথা জানালেন ব্রিটিশ সরকারের বৈজ্ঞানিক পরামর্শ দল সেইজ-এর বিশেষজ্ঞ মার্ক ওয়ালপোর্ট।

তাঁর মতে, করোনাভাইরাস রূপ পালটে চিরকাল থেকে যেতে পারে। তাই টিকার মাধ্যমেই একমাত্র এই ভাইরাসেরসংক্রমণ থেকে মানবকূলকে বাঁচানো যেতে পারে। তাই টিকা আবিষ্কার হলে সময়সীমা অনুযায়ী নিয়মিত করোনার টিকা নিতে হতে পারে। স্যার মার্ক ওয়ালপোর্ট আরও বলেন, ‘করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আনতে হলে বিশ্বব্যাপী টিকা কার্যক্রম প্রয়োজন। তবে করোনা গুটিবসন্ত জাতীয় কোনো রোগ নয় যে, টিকার মাধ্যমেই নির্মূল হয়ে যেতে পারে। এটি এমন একটি ভাইরাস, যা আমাদের সঙ্গে কোনো না কোনো রূপে চিরকাল থাকবে এবং প্রায় নিয়মিতভাবে টিকা দেওয়ার প্রয়োজন হবে। তাই একজন মানুষকে নিয়মিত বিরতিতে বারবার টিকা নিতে হবে।’

এর আগে গত শনিবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস গেবরিয়াসুস এর আগে গতকাল বলেন, ১৯১৮ সালের স্প্যানিশ ফ্লু দুই বছরের মধ্যে শেষ হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু বর্তমান বিশ্বের উন্নত প্রযুক্তি এই ভাইরাসটিকে তার চেয়েও কম সময়ে আটকে দিতে পারবে বলে আশা করছি।’ এর একদিন পরেই স্যার মার্ক ওয়ালপোর্ট বলেন, ‘জনসংখ্যার ঘনত্ব ও ভ্রমণের ফলে ভাইরাসটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। ১৯১৮ সালের চেয়ে বর্তমানে পৃথিবীতে জনসংখ্যা অনেক বেশি।’ তথ্য বলছে, ১৯১৮ সালের ভয়াবহ ফ্লুতে বিশ্বে অন্তত পাঁচ কোটি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। সেই তুলনায় করোনাতে প্রাণহানির পরিমান অনেক কম। এখন পর্যন্ত বিশ্বের আট লক্ষের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে এবং দুই কোটি ৩০ লক্ষ মানুষ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে ধারণা করা হয়, পরীক্ষা করা হয়নি বা লক্ষণ দেখা যায়নি, এমন আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা আরও অনেক বেশি। এই পরিস্থিতি যে কোনও সময় নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। তাই, স্যার মার্ক ওয়ালপোর্ট সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, ‘করোনাভাইরাস আবারও নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়া সম্ভব। তবে সেটা ঠেকাতে শুধুমাত্র লকডাউনের পরিবর্তে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিয়ে এগোতে হবে।’

সম্প্রতি ইউরোপিয়ান দেশগুলিতে ফের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে দেখা গেছে। যেসব দেশকে মহামারী করোনা নিয়ন্ত্রণে সফল বলে মনে করা হচ্ছিল, সেসব দেশেও নতুন করে সংক্রমণ বাড়ছে। সেই প্রসঙ্গ সামনে এনেছেন স্যার মার্ক ওয়ালপোর্ট। তিনি বলেছেন, ‘ইউরোপীয় দেশগুলিতে এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশে যেভাবে নতুন করে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে, তাতে উদ্বিগ্ন হওয়ার অনেক কারণ আছে।’

 

Related Articles

Back to top button
Close