fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

বোরখার পর শ্রীলঙ্কায় নিষিদ্ধ হতে চলেছে গোহত্যা

 যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: বোরখার পর এবার কোপ পড়ল গোহত্যায়। শ্রীলঙ্কায় নিষিদ্ধ হতে চলেছে গোহত্যা। শ্রীলঙ্কা সরকার স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে, খুব শীঘ্রই বন্ধ হতে চলেছে গোহত্যা। গত মাসে সংসদীয় নির্বাচনে দুই তৃতীয়াং ভোট পাওয়া শ্রীলঙ্কার শাসক দল গোটা দেশে গোহত্যা নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই দেশে গোহত্যা নিষিদ্ধ করা হলেও  গোমাংসের আমদানি আগের মতই জারি থাকবে। প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দ্রা রাজাপক্ষ মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কায় সংসদে উপস্থিত থেকে এই বিষয়ে আলোচনা করেন।

প্রসঙ্গত, শ্রীলঙ্কায় প্রভাবশালী বৌদ্ধ ভিক্ষুকরা বেশিরভাগই প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দ্রা রাজপক্ষকে সমর্থন করেছে গোহত্যা নিষিদ্ধ করার বিষয়ে। সিংহলা এবং বৌদ্ধ সম্প্রদাইয়ের মানুষজন স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে,  কোনওরকম ভাবেই সেই দেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে  তোষণ করা চলবে না, এই সম্প্রদায়কে তোষণ করা হলে মাহিন্দ্রা রাজাপক্ষের ক্ষমতাচ্যুতি হতে পারে।

[আরও পড়ুন- দেশে ফের বাড়ল সংক্রমণ, একদিনে আক্রান্ত ৯০ হাজার]

উল্লেখ্য, শ্রীলঙ্কার ৯৯ শতাংশ মানুষ আমিষ খান। বহুসংখ্যক হিন্দু আর বৌদ্ধরা গোমাংস খায় না।  জানা গিয়েছে যে, তাঁরাই সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করে গোহত্যায় নিষেধাজ্ঞা জারি করার চেষ্টা করছে। এর আগেও শ্রীলঙ্কায় হিন্দুরা একাধিকবার গোহত্যা নিষিদ্ধ করার বিষয়ে প্রতিবাদ করেছিল। এইসব প্রতিবাদী মিছিলে শ্রীলঙ্কার সংখ্যালঘু বৌদ্ধরাও অংশ নিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসব ইস্টার সানডে’র দিনে গির্জা এবং ট্যুরিস্টদের কাছে জনপ্রিয় এমন কয়েকটি হোটেলে ভয়াবহ বোমা হামলা চলে। এই হামলায় নিহত হন কমপক্ষে ২৫৩ জন নিরীহ মানুষ। শ্রীলঙ্কা এই হামলার দায় স্বীকার করে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)৷এরপরেই শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের দফতরে এক বিবৃতিতে বলা হয় যে, ‘‘জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে সেই দেশে কেউ এমনভাবে মুখ ঢাকতে পারবেন না, যা পরিচয় গোপন করে৷”

 

Related Articles

Back to top button
Close