fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

১০০ দিনের প্রকল্পে দুর্নীতি, কাটমানি নেওয়ার অভিযোগে পঞ্চায়েত অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ সিপিএমের

মিল্টন পাল, মালদা: তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে ১০০ দিনের প্রকল্পে দুর্নীতি ও আবাস যোজনা প্রকল্পে কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ তুলে পঞ্চায়েত অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ সিপিএমের। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার মালদার চাঁচলের মতিহারপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে। গ্রামের বাসিন্দাদের অভিযোগ এই গ্রামপঞ্চায়েতর প্রধান সরকারী যে কোন প্রক্লপের জন্য ১৫ থেকে ২০হাজার টাকা কাটমানি নিচ্ছেন। তারা গরীব মানুষ কোথায় পাবে টাকা। তাই এদিন এদিন প্রতিবাদ জানিয়ে এলাকার সিপিএম নেতৃত্ব বিক্ষোভ শুরু করে।

জানা গিয়েছে, তৃণমূল পরিচালিত মতিহার পুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও তার দলবলেরা সরকারি প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ করছে। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার ঘর দেওয়ার নাম করে সাধারন গ্রামবাসীদের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছে। আর সেই টাকা দিতে না পারলে দেওয়া হচ্ছে না ঘর। এছাড়াও এম জি এন আর ই জি এস প্রকল্পে ১০০ দিনের কাজ ও হটিকালচার বিভিন্ন খাতে টাকা আসলে সেই টাকার সম্পূর্ণ দেওয়া হচ্ছে না গ্রামবাসীদের। গ্রামের বাসিন্দা রাবিয়া বিবি জানান, ঘরের তালিকা তৈরি হলেও সেখানে আমাদের নাম নাই । বিভিন্ন রকম অজুহাত দেখাচ্ছে প্রধান । সেই ঘরের জন্য ১৫০০০ টাকা করে চাইছেন প্রধান। আমাদের বাড়িঘর কিছুই নেই আমরা গরীব মানুষ কী করব বুঝে উঠতে পারছি না।

স্থানীয় সিপিএম নেতা জাহাঙ্গীর আলমের অভিযোগ, এমজি এন আর ই জি এস প্রকল্পে ৫১ কোটি টাকার কলা গাছ লাগানোর প্রকল্প করা হয়েছে। কিন্তু উপভোগক্তারা টাকা পাচ্ছেন না। সব টাকা আত্মসাত করেছেন প্রধান। এর পাশাপাশি সরকারি আবাস যোজনায় কাটমানি নেওয়া হচ্ছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের কাজ দেওয়া হচ্ছে না। তাই এদিন সাধারন গ্রামবাসীদের নিয়ে পঞ্চায়েত ঘেরাও করতে বাধ্য হয়েছি। অবিলম্বে উপভোক্তাদের টাকা ও ঘর দিতে হবে।

যদিও সিপিএমের তলা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন চাঁচোল ১ নম্বর ব্লকের মতিহার পুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান পপি দাস। তিনি বলেন, এই সরকারের উন্নয়ন প্রতিটি ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। বিরোধীদের অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তৃণমূল কংগ্রেসের উন্নয়ন বিরোধীরি দেখতে পাচ্ছে না। তাই এধরনের বিরোধীতা করছে। আর এই আন্দোলনকে কটাক্ষ করেছেন জেলা বিজেপি নেতৃত্ব।জেলা বিজেপির সহ সভাপতি অজয় গাঙ্গুলী বলেন, এই ঘটনাটি একটি হাস্যকর ব্যাপার। যে দলকে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ দূরে সরিয়ে দিয়েছে। আর সেই দল দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে।  আমরা বলছি সমস্ত দুর্নীতির সঙ্গে যারা যুক্ত রয়েছে তারা এক হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গে সাধারণ মানুষকে আমরা বলছি বিজেপির ছাতার তলায় আসুন।  তাদের আদর্শ গ্রহণ করুন।মালদা জেলাতে ভারতীয় জনতা পার্টি ১২-০ ফল করবে অপেক্ষায় আমরা আছি। সাধারন মানুষ আমাদের সঙ্গে আছেন।  তৃণমূল কংগ্রেস সিপিএমকে সমস্ত পশ্চিমবঙ্গের মানুষ ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছে। আর সেই জন্যই দুর্নীতিযুক্ত দল একটা লোক দেখানোর জন্য বিক্ষোভ আর বিশৃংখলার সৃষ্টি করছে পশ্চিমবঙ্গের।

 

Related Articles

Back to top button
Close