fbpx
ক্রিকেটখেলাহেডলাইন

২৩৩ বছরের ইতিহাসে প্রথমবার মের্লবোর্ন ক্রিকেট ক্লাবের প্রেসিডেন্ট পদে মহিলা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ২৩৩ বছরের ইতিহাসে প্রথমবার মের্লবোর্ন ক্রিকেট ক্লাবের প্রেসিডেন্ট পদে এই প্রথম অভিষেক হচ্ছে কোনও মহিলার। একটু-একটু করে রক্ষণশীলতার গণ্ডি থেকে বেরিয়ে এলেও এমসিসি’র শীর্ষ পদে কখনই কোনও মহিলা আসীন হননি। সে ক্ষেত্রে নতুন ইতিহাস গড়তে চলেছেন ক্লেয়ার কনর। এমসিসির প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পেয়ে উচ্ছ্বসিত ৪৩ বছর বয়সী ইংল্যান্ডের প্রাক্তন মহিলা ক্রিকেটার।  শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন ক্রিকেটার কুমার সঙ্গকারার উত্তরসূরি হচ্ছেন ইংল্যান্ডের প্রাক্তন মহিলা ক্রিকেটার ক্লেয়ার কনর। আগামী বছরের অক্টোবর মাসে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন তিনি। আর কনরের দায়িত্ব গ্রহণের সঙ্গে সঙ্গেই নতুন এক মাইলফলক সৃষ্টি হতে যাচ্ছে।

আবেগ আপ্লুত কণ্ঠে কনর বলেছেন, ‘এমসিসির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে মনোনীত হওয়ায় কতটা খুশি হয়েছি, তা ভাষায় ব্যক্ত করতে পারব না। ক্রিকেট আগেই আমার জীবনকে সমৃদ্ধ করেছে আর এখন পেলাম দারুণ এই সম্মান। আমি প্রথম লর্ডসে পা রেখেছিলাম উচ্ছ্বাস ভরা চোখে। ছিলাম ৯ বছর বয়সের একটা মেয়ে, সে সময় মেয়েদের লং রুমে স্বাগত জানানো হতো না। আর এখন! সময় পাল্টেছে।’

আরও পড়ুন: কৃষ্ণাঙ্গ নারীর নামাঙ্কিত নাসার সদর দফতর

মহিলা ক্রিকেটের অন্যতম কিংবদন্তী হিসেবেই পরিচিত কনর। ইংল্যান্ডের হয়ে জাতীয় দলের জার্সিতে ১৬ টেস্ট, ৯৩ ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ২০০০ সালে ইংল্যান্ডের মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব পান। ৪২ বছরের মধ্যে ২০০৫ সালে দেশকে জেতান প্রথম অ্যাশেজ ট্রফি। ২০০৭ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডে মেয়েদের ক্রিকেটের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পান তিনি।

বিশ্ব ক্রিকেটের সঙ্গে আঁতুরঘর হিসেবে পরিচিত মের্লবোন ক্রিকেট ক্লাব প্রতিষ্ঠিত হয় ১৭৮৭ সালে। একটা সময়ে বিশ্বে ক্রিকেট খেলার অন্যতম নিয়ামক সংস্থাই ছিল টমাস লর্ড প্রতিষ্ঠিত এমসিসি। এমনকি ক্রিকেটের আইন কানুন প্রথম প্রচলিত হয় এমসিসিতেই। ক্লাবের নিজস্ব মাঠ লর্ডস ক্রিকেটের মক্কা হিসেবেই খ্যাত। প্রত্যেক ক্রিকেটারের জীবনেই লর্ডসের মাটিতে খেলা জীবনের স্বপ্ন।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close