fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খকলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

‘অপরাধীদের ধর্ম হয় না’, বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক হিংসার নিন্দায় বিবৃতি জারি আব্বাস সিদ্দিকীর

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছে সব মহল। ঘটনার নিন্দা করছে গোটা বিশ্ব। দুর্গাপুজোর মণ্ডপ ও  ইসকন মন্দিরে ভাঙচুরের ঘটনায় নিন্দাপ্রস্তাবের দাবিতে রাষ্ট্রসংঘে চিঠিও পাঠিয়েছে ইসকন কর্তৃপক্ষ। এপার বাংলাতেও সকলে সরব।

শনিবারই সিপিএম তথা বামেরা ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে। এবার সংযুক্ত মোর্চা জোটের অন্যতম শরিক তথা বামেদের সহযোগী আইএসএফ সুপ্রিমো তথা ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস বাংলাদেশের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে এক লিখিত বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ”কোনও প্রকৃত ধার্মিক অন্যের ধর্মকে ঘৃণা করে না। কারণ, প্রকৃত ধর্ম অধর্মের শিক্ষা দেয় না এবং সমস্ত অপকর্ম বর্জনের শিক্ষা দেয়। সমস্ত ধর্মই সহিষ্ণুতার শিক্ষা দেয় বলে আমি বিশ্বাস করি।” তিনি বিবৃতিতে আরও লেখেন, ”যে বা যারা এই কাজ করেছে, তাদের কঠোর থেকে কঠোরতম শাস্তির দাবি জানাই।” উল্লেখ্য, বাংলাদেশের পুজোমণ্ডপে ইসলামদের ধর্মগ্রন্থ পবিত্র কোরান অবমাননার অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগ আসার পরেই একটি পুজো মণ্ডপে ভাঙচুর চলে। কুমিল্লার এই ঘটনার  পর আবার নোয়াখালিতে ইসকন মন্দিরে ভাঙচুর করে এক সদস্যকেও খুন করা হয় বলে অভিযোগ। আর তাতেই সাম্প্রদায়িক হিংসা মাথাচাড়া দেয়। তবে ঘটনার পরেই বাংলাদেশ সরকার দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছে।

শেখ হাসিনা প্রশাসন কড়া হাতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে প্রায় দেড়শো জনকে আটক করা হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই বাংলাদেশের এই ভূমিকায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে ভারত।এই পরিস্থিতিতে এবার ফুরফুরা শরিফের তরফেও নিন্দা করে লিখিত বিবৃতি জারি করা হল। দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানালেন আব্বাস সিদ্দিকীরা।

Related Articles

Back to top button
Close