fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শুল্ক দফতর ও পুলিশের হাতে ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তে ১৭৫টি গম ভর্তি ট্রাক আটক

শ্যাম বিশ্বাস, উত্তর ২৪ পরগনা: বসিরহাট মহাকুমার বসিরহাট ভারত-বাংলাদেশ ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তে বাংলাদেশ রপ্তানি হওয়ার আগে গমের বস্তা ভর্তি ১৭৫ ট্রাক আটক করা হল। শুল্ক দফতরের হাতে আটক এই ট্রাকে গমের বস্তা গায় ফুড কর্পোরেশন ইন্ডিয়া লেখা চিহ্ন রয়েছে। সেগুলি আসল কি নকল সেটাও পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। এবং গম পুরনো বস্তায় ম্যানুফাকচারিং করা হয়েছে সেইটা নিয়ে বৈধ চিহ্ন দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি গম রপ্তানি করা ব্যবসায়ীদের বাড়ি মালদা মুর্শিদাবাদ হাবরা অশোকনগর বারাসাত কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায়। পুলিশ সূত্রের খবর ১৪ থেকে ১৫ জন ব্যবসায়ী রয়েছে ইতিমধ্যে তাদেরকে ডেকে পাঠানো হয়েছে বৈধ কাগজপত্র চেয়ে।

চলতি মাসের ২০ শে অক্টোবর ঘোজাডাঙ্গা সীমান্ত থেকে ১৭৫টি গম ভর্তি ট্রাক বাংলাদেশ যাচ্ছিল। যাওয়ার আগে কাস্টমস চেকিং এর সময় ধরা পড়ে। ট্রাকচালকদের কাছে ম্যানুফ্যাকচারিং তারিখের বৈধ কাগজপত্র ছিল না। তারপর বৈধ কাগজপত্র আনার জন্য তাদেরকে ডেকে পাঠানো হয়। কি করে সীমান্তে বাংলাদেশে যাওয়ার জন্য ট্রাক আসলো তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন- লক্ষ্মী পুজোর বাজারে আকাশ ছোঁয়া দাম হাত পুড়ছে গৃহস্থের

বনগাঁর ব্যবসায়ী জিয়া মন্ডল ও ঘোজাডাঙা সীমান্তের আমদানি-রপ্তানি সংস্থার সম্পাদক জয়দেব সরকার বলেন যে, আমরা যেখান থেকে মাল কিনেছি তার ভাউচার আছে, বাংলাদেশ থেকে এল সি বৈধ কাগজপত্র রয়েছে, ট্রাক লোডিং এর ছাড়পত্র রয়েছে। এর সমস্ত কাগজপত্র বসিরহাট থানা ও শুল্ক দফতরের হাতে তুলে দিয়েছি। শুল্ক দফতর সূত্রের খবর যে ট্রাকভর্তি গম বাংলাদেশ যাচ্ছিল সেইগুলো ফুড কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়ার লগো রয়েছে সেগুলো নিয়ে প্রশ্ন চিহ্ন দেখা দিয়েছে।

পাশাপাশি খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, ভিন রাজ্য পাঞ্জাব, হরিয়ানা থেকে গম পাচার করে নিয়ে এসেছে। এটা পাবলিকের গম পশ্চিমবঙ্গ সীমান্ত দিয়ে পাচার করার উদ্দেশ্য ছিল। পুলিশ ও শুল্ক দফতর হাতে আটক হয়েছে। এখনও উপযুক্ত নথিপত্র দেখাতে পারিনি।

Related Articles

Back to top button
Close