fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূলের প্রাক্তন কাউন্সিলরের ‘দাদাগিরি’, প্রৌঢ়ার বাড়ি দখলের চেষ্টা

মিল্টন পাল,মালদা: তৃণমূলের প্রাক্তন কাউন্সিলরের দাদাগিরি। স্বামীহারা, সন্তানহীন,এক প্রৌঢ়ার বাড়ি দখলের চেষ্টার অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলরের স্বামী ও তার দলের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে প্রতিবাদ করায় বাড়িতে এসে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ। আতঙ্কে ওই প্রৌঢ়া এবার জেলাশাসক ও মুখ্যমন্ত্রী ও পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হয়েছেন। মালদার ইংরেজবাজার পৌরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের ঘটনা।অভিযোগ অস্বীকার কাউন্সিলরের স্বামীর। এর পেছনে বিরোধীদের চক্রান্ত রয়েছে বলে তার দাবি। ওই প্রৌঢ়ার পাশে দাঁড়িয়েছে বিজেপি।  ঘটনার তদন্ত করে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলেন ইংরেজবাজার পুরো প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য তথা তৃণমূল নেতা দুলাল সরকার।

ফুলবাড়ি এলাকার বাসিন্দা লিনা সরকার। সে একটি স্কুলে প্যারা টিচার। তিনি বলেন, তিনি সন্তানহীন।  স্বামী পুলক রঞ্জন সরকার বেঁচে থাকতেই তাদের পারিবারিক ৫ কাঠা জমির উপর বাড়ি রয়েছে। সেই বাড়ি দখল করার চেষ্টা করছে স্থানীয় কাউন্সিলর শম্পা সাহা বসাক ও তার স্বামী মলয় বসাক সহ আরও বেশ কয়েকজন। তাদেরকে লাগাতার বাড়ি ছাড়ার জন্য হুমকি দেওয়া হচ্ছে। ৩০.০৬.২০ তারিখে এসব অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে অসুস্থ হয়ে তার স্বামী প্রয়াত হন। এরপর তাকে লাগাতার বাড়িটি খালি করার হুমকি দেওয়া শুরু হয়েছে। বারবার ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ জানিয়েও কোনো লাভ না হওয়ায় তিনি এবার জেলাশাসক,পুলিশ সুপার,মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন।এই পরিস্থিতি যেকোনো সময় তার প্রাণহানি হতে পারে বলে তার দাবি।

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন স্থানীয় কাউন্সিলর শম্পা সাহা বসাকের স্বামী মলয় বসাক। তিনি বলেন অভিযোগকারী ভিত্তিহীন অভিযোগ করছে। তার কাছে কোন প্রমাণ নেই।এর পেছনে বিরোধীরা রয়েছে। কাউন্সিলরের ইমেজকে কলুষিত করার চক্রান্ত করছে বিরোধীরা।

আরও পড়ুন: ভার্চুয়াল এডুকেশন ইন্টার ফেস-এর সূচনা রাজ্যে, থাকছে কেরিয়ার কাউনসেলিংয়ের সুযোগ

বিজেপির মালদা জেলার সহ-সভাপতি অজয় গঙ্গোপাধ্যায় বলেন,তোলাবাজি,কাটমানি,জমি বাড়ি দখল আর তৃণমূল সর্মাথক শব্দ।গোটা পশ্চিমবঙ্গে যেটা চলছে মালদা জেলাও তার ব্যাতিক্রম নয়। কাউন্সিলার যেটা করছে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে অনুপ্রানিত হয়ে তার নেতৃত্ব অনুপ্রানিত হয়ে যেমন দখলদারি করছে ১৪নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও তার স্বামী একই কাজ করছে। প্রশাসন যদি ওই ভদ্রমহিলার পাশে না দাঁড়ায় তাহলে বিজেপি তার পাশে দাঁড়াবে। আর তৃণমূল বলে রেয়াত করা হলে বিজেপি রেয়াত করবে না। আন্দোলনে নামবে বিজেপি

ইংরেজবাজার পৌরসভার পৌর প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য তথা দলের ইংরেজবাজার পুরসভার কো-অর্ডিনেটর দুলাল সরকার বলেন,যদি কেউ করে থাকে এধরনের ঘটনা সে কাউন্সিলর বা যে কেউ তাহলে দল তার পাশে থাকবে না।সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে। এরপর যদি দোষী প্রমাণিত হয় তাহলে দল কঠোর ব্যবস্থা নেবে।

Related Articles

Back to top button
Close