fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নিখোঁজ ব্যাক্তির রহস্য মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য, তদন্তে পুলিশ

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর : ১২ দিন নিখোঁজ থাকার পর এক মধ্যবয়স্ক ব্যাক্তির মৃতদেহ উদ্ধার হল তারই অন্য একটি বাড়ির ভেতর থেকে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল উত্তর ২৪ পরগনার পানিহাটি পুরসভার অন্তর্গত ঘোলার চণ্ডীতলা এলাকায়। মৃত ওই ব্যাক্তির নাম দীনেশ সেন (৪৫) । পানিহাটি পুরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ডের নাটাগড় এলাকায় দীনেশ বাবুর পুরনো একটি বাড়ি আছে, সেখানেই পরিবার নিয়ে থাকতেন তিনি। গত ১৭ জুলাই বাড়ি থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ হয়ে যান দীনেশ সেন। মৃতের পরিবারের সদস্যরা এই ঘটনার পর ঘোলা থানায় নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর মৃতের স্ত্রী বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির পরও স্বামীকে খুঁজে পাননি।

মৃতের স্ত্রী মৌমিতা সেন বলেন, “আমার স্বামী ওষুধের ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ও ১৭ তারিখ কাজে বেরিয়েছিল, ভেবেছিলাম ফিরবে। আশায় আশায় ছিলাম। আজ এক আত্মীয় খবর দিল এই চণ্ডীতলাতে আমাদের নতুন কেনা বাড়িতে ওর মৃতদেহ পড়ে আছে । কি করে এই ঘটনা ঘটল, বুঝতে পারছি না।”

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, গত দুই তিনদিন ধরে আমরা এই বাড়ি থেকে পচা গন্ধ পাচ্ছিলাম। তবে আজ সকালে বেশি দুর্গন্ধ বেরোতে শুরু করে। তখনই আমরা খবর দিই এলাকার প্রাক্তন কাউন্সিলর প্রদীপ বড়ুয়া এবং ঘোলা থানার পুলিশকে। এলাকার প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর প্রদীপ বড়ুয়া বলেন, “মৃত ব্যক্তি এই বাড়ি কবে কিনেছিলেন জানতাম না।

মৃত দীনেশ সেনের বেশ কিছুদিন আগেই মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছে পুলিশ। এদিকে পুলিশ সূত্রের খবর, ঘরের মেঝতে শোয়ানো অবস্থায় পড়ে ছিল মৃত ব্যক্তির দেহ। যে বাড়ি থেকে ওই মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে, সেই বাড়িতে আর কেউ থাকত না। তবে কিভাবে দীনেশ সেনের মৃত্যু হল, তা ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে আসলে স্পষ্ট হবে বলে জানিয়েছেন ঘোলা থানার তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা। মৃতের পরিবারের সদস্যদের কয়েকজনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close