fbpx
কলকাতাহেডলাইন

পুরোহিতদের মতো সরকারি তহবিল থেকে মুসলিম ইমাম,খ্রিস্টান ফাদারদেরও ভাতা দেবার দাবি সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের

মোকতার হোসেন মন্ডল: পুরোহিতদের মতোন সরকারি তহবিল থেকে মুসলিম ইমাম, খ্রিস্টান ফাদারদেরও ভাতা দেবার দাবি জানালো সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই দাবিতে চিঠি দিয়েছেন ওই সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান। ওই সংখ্যালঘু নেতা মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি চিঠিতে লিখেছেন,’আপনি সরকারি তহবিল থেকে হিন্দু ধর্মের পুরোহিতদের যে মাসিক যে এক হাজার টাকা ভাতা দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন, সেইজন্য আমরা আপনাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।’

মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি আরও লেখেন,’একই সঙ্গে ইসলাম ধর্মের মসজিদের ইমাম, খ্রিস্টান ধর্মের গির্জার ফাদার,বৌদ্ধ মন্দিরের ভিক্ষু,শিখ ধর্মের গুরুদোয়ারার প্রধান পরিচালককেও সরকারি তহবিল থেকে মাসিক এক হাজার টাকা ভাতা এবং আবাস যোজনা থেকে বাড়ির ব্যবস্থা করার আবেদন জানাচ্ছি।’

[আরও পড়ুন- জোর ধাক্কা কেএমডিএ, রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজোর আবেদন খারিজ এনজিটি]

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে মুহাম্মদ কামরুজ্জামানের মন্তব্য, ‘সংখ্যাগুরু সম্প্রদায়ের পুরোহিতরা এই সুযোগ পেলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ইমাম,ফাদার,ভিক্ষুরাও যে পাওয়ার ন্যায্য দাবীদার, আশা করি এ বিষয়ে আপনি সহমত হবেন। মুসলমানদের কল্যাণে মুসলমানদের নিজস্ব দান করা সম্পত্তি ওয়াকফ বোর্ডের তহবিল থেকে মসজিদের ইমামরা যে ভাতা পান তার সঙ্গে সরকারি তহবিল থেকে এক হাজার টাকা ও আবাস যোজনার ঘর পেলে আমরা খুশি হব। অতএব মহাশয়া, আশা করি আপনি সহানুভূতির সঙ্গে আমাদের এই দাবী বিবেচনা করে সংখ্যাগুরু ও সংখ্যালঘু উভয় সম্প্রদায়ের ধর্মগুরুদের  সমান ভাতা, সম্মান ও স্বীকৃতি দেবেন।’

এদিকে সরকারি টাকায় পুরোহিত ভাতা দেওয়ার বিরোধিতা করেছেন প্রাক্তন পুলিশ অফিসার ডঃ নজরুল ইসলাম। তবে মুসলিমদের অনেকে স্বাগতও জানিয়েছেন। কিন্তু মুহাম্মদ কামরুজ্জামান বলছেন, ইমাম ভাতা দেওয়া হয় মুসলিমদের দানের ওয়াকফ সম্পদের টাকা থেকে। পুরোহিত ভাতা সরকারি তহবিল থেকে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ, কিন্তু ইমাম, ফাদারদেরও সরকারি তহবিল থেকে ভাতা দিতে হবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close