fbpx
বাংলাদেশহেডলাইন

বর্তমানে বাংলাদেশে গণতন্ত্রকে নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে : তারেক জিয়া

যুগশঙ্খ প্রতিবেদন, ঢাকা: বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপির অস্থায়ী চেয়ারম্যান ও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক জিয়া বলেছেন, বাংলাদেশে বর্তমানে গণতন্ত্রকে নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে। আওয়ামি লিগ সরকার দীর্ঘ ১২ বছরের শাসনামলে মানুষের বাক-ব্যক্তি ও মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে ভূলুন্ঠিত করে দেশে একদলীয় নব্য বাকশাল প্রতিষ্ঠিত করেছে। মঙ্গলবার ‘আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস’ উপলক্ষে তারেক জিয়া এক বাণীতে এসব কথা বলেন।

গণমাধ্যমে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর পাঠানো এই বাণীতে খালেদাপুত্র বলেন, ‌‌এক ‌সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা গত শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ অর্জন। গণতন্ত্র এবং অর্থনৈতিক মুক্তির মাধ্যমে একটি সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য নিয়েই আমরা স্বাধীনতাযুদ্ধ করেছিলাম। সে লক্ষ্য পূরণে আমরা আজও কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু পরিতাপের বিষয় বাংলাদেশে বর্তমানে গণতন্ত্রকে নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্র পুণ:রুদ্ধারের আপোষহীন নেত্রী প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ সারাদেশে বিএনপি’র লক্ষ লক্ষ নেতাকর্মী গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য হাসিনা সরকারের ভয়াবহ জেল-জুলুম ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। জীবন কেড়ে নেওয়া হয়েছে অনেকের। অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন। বিএনপি ছাড়াও ভিন্নমতাবলম্বীরা সরকারের স্টিম রোলারের নীচে পিষ্ট হয়ে আসছেন।

বর্তমান বিএনপি প্রধান বলেন, বাংলাদেশে বিভিষিকাময় শাসন বিদ্যমান রয়েছে। যার নমূনা দিনের ভোট রাতে হয়, অথবা বিনাভোটে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়। তবে আমি মনে করি-ইনক্লুসিভ, সমানাধিকার ও অংশগ্রহণের ভিত্তিতেই রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক বিকাশ নিশ্চিত হয়। আমাদের অঙ্গিকার হোক-গণতন্ত্রমণা সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দেশে আবারও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছানো।

Related Articles

Back to top button
Close