fbpx
আন্তর্জাতিকএকনজরে আজকের যুগশঙ্খগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

ধর্মনিরপেক্ষ বললেও সাম্প্রদায়িক হিংসা রুখতে কোনও ব্যবস্থাই নেননি হাসিনা’, তোপ তসলিমার

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাংলাদেশে হিন্দুদের উপর আক্রমণের ঘটনা নিয়ে এবার মুখ খুললেন বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। অতীতেও দেখা গিয়েছে বহু চর্চিত বিষয় নিয়ে কড়া মন্তব্য করেছেন তিনি। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ধারাবাহিকভাবে সরব হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এবার বাংলাদেশের সাম্প্রতিক হিংসার ঘটনায় লেখিকার রোষের মুখে পড়লেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুর্গাপুজোর সময় বাংলাদেশে প্রচুর অশান্তি হলেও ইচ্ছাকৃতভাবেই শেখ হাসিনা প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

এ ব্যাপারে তসলিমা বলেন, “বাংলাদেশে হিন্দু এবং বৌদ্ধরা বারবার আক্রমণের শিকার হয়েছেন। তবে কেউই সুবিচার পাননি। অনেকেই দাবি করেন শেখ হাসিনা ধর্মনিরপেক্ষ। শেখ মুজিবর রহমানের মেয়ে হওয়ায় অনেকেই তাঁকে ভাল বলেই ভাবেন। আমি সেটা মনে করি না। তিনি ধর্মীয় হানাহানিতে উস্কানি দেন। তাই সুবিচার পান না কেউই।”

যদিও হিন্দুদের উপর আক্রমণের ঘটনায় দোষীদের রেয়াত করা হবে না বলে জানিয়েছেন হাসিনা।  হাসিনা বলেছেন, “দোষীদের এমন শাস্তি দিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে এমন কাজ করতে কেউ সাহস না পায়।” ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে ধরপাকড়। তা সত্ত্বেও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশকে সত্যি বলে মানতে নারাজ তসলিমা নাসরিন। তাঁর দাবি, “ধর্মীয় হানাহানির বিরুদ্ধে সত্যিই যদি হাসিনা ব্যবস্থা নিতেন, তবে কোনও ব্লগারকে খুন হতে হত না। বাড়ি এবং দোকানে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুরের মতো ঘটনার সাক্ষী হতেন না কেউই। শেখ হাসিনা বাংলাদেশের নাগরিকদের প্রকৃত স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছেন”। সেই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, সরকারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করলে জেলবন্দিও হতে হয়।

ধর্মীয় হানাহানির নেপথ্যে কি কোনও বড়সড় চক্রান্ত রয়েছে?  এ প্রসঙ্গে তসলিমা বলেন, “যারা ভাঙচুর কিংবা অগ্নিসংযোগ করছে, তাদের কেউ বা কারা বুঝিয়েছে যে ইসলামই একমাত্র আদর্শ ধর্ম। আর সেই বোধ থেকেই এ ধরনের কাজ করছে তারা”। যথারীতি তসলিমার এই বক্তব্য নিয়ে নতুন করে বিতর্ক দেখা দিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close