fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও দিনহাটার বিভিন্ন বাজারে উপচে পড়া ভিড়

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলার মধ্যেই চার দিনের লকডাউন উঠতেই এবং দোকান পাট খোলার সময়সীমা বাড়াতেই ভিড় উপচে পড়ল দিনহাটার বিভিন্ন বাজারে। রবিবার ও জেলা প্রশাসনের দেওয়া তথ্য অনুয়ায়ী দিনহাটা মহকুমায় ১৮ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়। করোনা আক্রান্তের মধ্যেও লকডাউন উঠতেই এদিন সকাল থেকেই দোকান বাজার খুলতেই ভিড় উপচে পড়ে গ্রাহকদের। বাজারে ভিড়ের পাশাপাশি রাস্তাতেই ব্যাপক ভিড় হয়। ফলে শহরের পাঁচ মাথার মোড়ে ব্যপক যানজট হয়।

এদিকে এদিন একটানা কয়েক মাস ধরে লকডাউনের ফলে ব্যবসায়ীরা আর্থিক সঙ্কটে পড়ে শুক্রবার মহকুমা শাসকের কাছে লিখিত ভাবে দোকান বাজার খোলার সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন জানান। মহকুমা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দেশ জারি করে এদিন থেকেই দিনহাটা শহরে লকডাউন শিথিল করার পাশাপাশি দোকান বাজার বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত খোলা রাখার নির্দেশ দেন। সেই অনুয়ায়ী এদিন দোকান বাজার খুলতেই ব্যাপক ভিড়ের ফলে যানজট হয় শহরেও।

পরিযায়ী শ্রমিকরা আসার পর থেকে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলছে পাল্লা দিয়ে। গত কয়েকদিনে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলায় সাধারণ মানুষ স্বাভাবিকভাবে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলায় অনেকেই মুখে মুখে আতঙ্কের কথা বললেও লকডাউন উঠতেই এদিন হাটবাজার কিংবা দোকানের ভিড় কে ঘিরে নানা প্রশ্ন দেখা দেয়।দোকান বাজারে ভিড় রোধে পুলিশ প্রশাসন কে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন অনেকে।

দিনহাটা মহকুমা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক রানা গোস্বামী বলেন, একটানা চারদিন পর সবকিছু খোলায় প্রথম দিন কিছুটা ভিড় হলেও ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে। পাশাপাশি তারা বলেন, ক্রেতা বিক্রেতা সকল কেই স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার কথা বলা হয়েছে।এছাড়াও বাজারে ভিড় রোধে পুলিশ ও প্রশাসনকে সমিতির সদস্যরা সব ধরনের সহযোগিতা করবে। ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক উৎপলেন্দু রায় বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব দিক বিবেচনা করে দোকান খোলার সময়সীমা বাড়ানোয় তারা খুশি। এতে ব্যবসায়ীরা যেমন রক্ষা পাবে তেমনি স্বাস্থ্য বিধি মেনে সকল কে চলতে হবে।

দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত বলেন, হাটবাজারে ভিড় কমাতে পুলিশি নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। মহকুমা শাসক শেখ আনসার আহমেদ বলেন, দোকান বাজার খোলা রাখার সময়সীমা বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত করা হয়েছে।হাটবাজারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথা বলা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close