fbpx
কলকাতাহেডলাইন

তৃণমূলের মুখে ‘বিজেপির এজেন্ট’ শুনে অপমানিত ধনকারের চিঠি মমতাকে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: অপমানিত রাজ্যপাল চিঠি দিলেন মুখ্যমন্ত্রীকে। চিঠিতে তাঁর অভিযোগ , তৃণমূল তাঁকে ‘বিজেপির এজেন্ট’ বলে বারবার অভিহিত করায় তিনি অত্যন্ত অপমানিত বোধ করেছেন। এছাড়া মণীশ শুক্লা হত্যাকাণ্ড, বেলেঘাটা বিস্ফোরণ-সহ আরও বেশ কয়েকটি বিষয় চিঠিতে যোগ করেছেন তিনি। পুলিশের ভূমিকা নিয়েও ফের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিটি নিজের টুইটারে দিয়েছেন রাজ্যপাল।
কী লিখেছেন চিঠিতে? তিনি লিখেছেন, সরাসরি প্রশাসনের সঙ্গে রাজ্যপালের বাক্য বিনিময় অনেক পরিস্থিতিই সহজ করে দেয়। কিন্তু বাংলায় তা হচ্ছে না। উল্টে একজন রাজ্যপালকে শাসকদলের নেতা, মন্ত্রীরা একটি বিশেষ রাজনৈতিক দলের ‘এজেন্ট’ বলে বারবার উল্লেখ করছেন, যা আদতে সাংবিধানিক প্রধানের পদ এবং কার্যালয়ের পক্ষে অবমাননাকর। তিনি অভিযোগ করেছেন, প্রশাসনই  সাংবিধানিক নিয়মনীতির তোয়াক্কা করছে না। পাশাপাশি পুলিশকে রাজনৈতিকভাবে নিরপেক্ষ হতে হবে বলে মত প্রকাশ করেছেন। তাঁর মতে পুলিশ শাসকদলের হয়ে কাজ করছে। এ প্রসঙ্গে তিনি মণীশ শুক্লা হত্যাকাণ্ডে ডিজিপিকে তলব এবং বিজেপির নবান্ন অভিযানে বিজেপি কর্মী বলবিন্দর সিংয়ের আগ্নেয়াস্ত্র কেড়ে তাঁর গ্রেফতারি নিয়ে হাওড়া সিটি পুলিশের ভূমিকার উল্লেখ করেছেন। দুটি বিষয়ই তাঁর কাছে যথেষ্ট অপ্রত্যাশিত বলে মনে হয়েছে।
চিঠির শেষে তিনি আশ্বাস দিয়ে জানিয়েছেন, একজন রাজ্যপালের যা কর্তব্য, তা তিনি করতে বদ্ধপরিকর। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর নাম করে তিনি লেখেন যে, রাজ্যের গণতান্ত্রিক পরিবেশ রক্ষায় তাঁকেই এগিয়ে আসতে হবে। চিঠিতে আবারও মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, সংঘাতের মধ্যে দিয়ে নয়, রাজভবন-নবান্ন একজোট হয়ে কাজ করলে, তবেই সবচেয়ে সুরক্ষিত এবং শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি তৈরি হবে। এদিন রাজভবনে বলবিন্দার সিংয়ের স্ত্রী করমজিৎ কাউর ও ছেলে হর্ষবীর রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেন। টুইট করে রাজ্যপাল লেখেন, ওঁরা সুবিচার চেয়েছেন। ওঁদের মুখের দিকে তাকাতে আমার কষ্ট হচ্ছিল। আমি বলবিন্দারের সুবিচারের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসনকে অনুরোধ করছি।

Related Articles

Back to top button
Close