fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা আবহে দোসর মহার্ঘ্য ডিজেল, বেসরকারি বাস পরিষেবা নিয়ে সংশয়

সুকুমার রঞ্জন সরকার, কুমারগ্রামঃ  আনলক ডাউনে গ্রীন জোন আলিপুরদুয়ার জেলায় সরকারি বাসের পাশাপাশি বেশ কিছু বেসরকারি বাস রাস্তায় নামলেও অধিকাংশ বেসরকারি বাস এখনও রাস্তায় নামেনি। বাস মালিক সংগঠন এর বক্তব্য, করোনা আবহে বাসগুলিতে এমনিতেই যাত্রী হচ্ছেনা তার ওপর ডিজেলের দাম আকাশ ছোঁয়া। এই পরিস্থিতিতে বাস চালিয়ে তারা ক্ষতির বোঝা বাড়াতে চাননা। বাস পিছু পনেরো হাজার টাকার ভর্তুকি সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হবে ঘোষনা করা হয়েছে তারপরেও কেন বাস চালাবেন না প্রশ্নের জবাবে জনৈক বাস মালিক জানান লক ডাউনে বাস পরিষেবা বন্ধ থাকায় তারা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন।

 

 

আনলক ডাউনে বেশ কিছু বাস রাস্তায় নামলেও যাত্রী সংখ্যা খুব কম হওয়ায় তাদের ক্ষতি হচ্ছে। তার ওপর ডিজেলের দাম আকাশ ছোঁয়া হওয়ায় বাস চালিয়ে যা পাওয়া যায় তা দিয়ে কর্মীদের বেতনের টাকাও ঘরে আসেনা। রাজ্য সরকার পনেরো হাজার টাকার ভর্তুকি দিলেও ক্ষতির বহর কমবেনা। বাস ভাড়া বাড়ানোর দাবীও সরকার মেনে নেয়নি। আলিপুরদুয়ার তরাই অঞ্চল মিনিবাস ওনার্স এ্যাশোশিয়েসনের সম্পাদক দেবাঙ্কুর দে বলেন, লক ডাউনে বাস বন্ধ থাকায় বাস কর্মীরা চরম আর্থিক সঙ্কটে পড়েন, তাদের কথা মাথায় রেখে অনেক মালিক রাস্তায় বাস নামিয়েছেন। কিন্তু ডিজেলের দাম যে হারে বাড়ছে তাতে লোকসানের পরিমান ও বাড়ছে। এই অবস্থায় কতদিন মালিকরা বাস চালাতে পারবেন তা নিয়ে সন্দেহ আছে।

 

 

 

ডিজেলের দাম না কমলে রাস্তায় যে কয়েকটা বাস চলছে সেগুলো ও বন্ধ হয়ে যাবে।বলে জানান নর্থ বেঙ্গল মোটর ট্রান্সপোর্ট এ্যাশোশিয়েসনের আলিপুরদুয়ার জেলা সম্পাদক সুশান্ত বসাক। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বাস মালিকরা বাস চালাতে অস্বীকার করলে সরকার বাস অধিগ্রহণ করে চালাবে। মালিকপক্ষ জানান এতে তাদের কোনো আপত্তি নেই। তাদের দাবী ভাড়া না বাড়ানো হলে লোকসানের বোঝা বয়ে তাদের পক্ষে দীর্ঘদিন বাস চালানো সম্ভব নয়।

Related Articles

Back to top button
Close